নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২ জুন ২০১৬, ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৩, ২৫ শাবান ১৪৩৭
বাংলাদেশের ভৌগোলিক অবস্থানের গুরুত্ব কাজে লাগানোর আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর
জনতা ডেস্ক
ভৌগলিক অবস্থানের গুরুত্বকে কাজে লাগাতে পারলে বাংলাদেশ প্রাচ্য ও পাশ্চাত্যের সেতুবন্ধ হতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ন্যাশনাল স্পেশিয়াল ডেটা ইনফ্রাস্ট্রাকচার (এনএসডিআই) ফর বাংলাদেশ শিরোনামে আন্তর্জাতিক সেমিনারের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, আমাদের ভৌগলিক অবস্থান আমাদের এমন গুরুত্ব দিয়েছে, আমরা যদি এর সবটুকু কাজে লাগাতে পারি তাহলে প্রাচ্য ও পাশ্চাত্যের মধ্যে যে সেতুবন্ধন রচনা করা, তা বাংলাদেশই করতে পারবে।

রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে গতকাল বুধবার সকালে এই অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী দেশের উন্নয়নের জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য-উপাত্তের অপ্রতুলতার কথা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, দেশকে সুন্দরভাবে গড়তে পরিকল্পনা দরকার। কিন্তু এজন্য আমাদের তথ্য-উপাত্তের অভাব রয়েছে। আর এজন্যই আমরা ন্যাশনাল স্পেশিয়াল ডেটা ইনফ্রাস্ট্রাকচার গঠনের উদ্যোগ নিয়েছি। এই অনুষ্ঠান থেকেই প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে রাজধানীর দামালকোটে স্থাপিত বাংলাদেশ জরিপ অধিদপ্তরের ডিজিটাল ম্যাপিং সেন্টারের উদ্বোধন করেন। তার আগে বাংলাদেশ জরিপ অধিদপ্তর, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এবং জাইকার সহযোগিতায় আয়োজিত 'ন্যাশনাল স্পেশিয়াল ডেটা ইনফ্রাস্ট্রাকচার (এনএসডিআই) ফর বাংলাদেশ' আন্তর্জাতিক সেমিনারের উদ্বোধন করেন করেণ। ডিজিটাল ম্যাপিংয়ের ওপর গুরুত্বারোপ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ম্যাপিং থাকলে যে কোনো উন্নয়ন সম্ভব। আমাদের ভৌগলিক অবস্থান অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ও বৈচিত্র্যময়। প্রতিটি গ্রাম ও উপজেলাকে পরিকল্পিতভাবে গড়ে তুলতে পারলে, সব সেবা নিশ্চিত করা সম্ভব। সমুদ্র উপকূলে নতুন জেগে উঠা চর ও দ্বীপগুলোর টপোগ্রাফিক জরিপ কার্যক্রম পরিচালনায় ব্যবস্থা নিতে বাংলাদেশ জরিপ অধিদপ্তরের প্রতি আহ্বান জানান তিনি। দেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান বিচ্ছিন্নভাবে জিও-স্পেশিয়াল ডেটা প্রস্তুত ও ব্যবহার করছে। এনএসডিআই গঠনের মাধ্যমে সব জিও-স্পেশিয়াল ডেটা একই প্লাটফর্মে জিও-পোর্টালে সংরক্ষিত থাকবে। ফলে জিও-স্পেশিয়াল ডেটা ব্যবহারকারী সব প্রতিষ্ঠানের চাহিদা অনুযায়ী ডেটা ব্যবহারের সুযোগ তৈরি হবে। শেখ হাসিনা বলেন,আয়তনের দিক থেকে বাংলাদেশ ছোট হলেও বিশ্বের অন্যতম ঘনবসতিসম্পন্ন এই দেশের সবচেয়ে বড় সমস্যা হয়ে দেখা দিচ্ছে ব্যবহারযোগ্য জমির স্বল্পতা। একদিকে খাদ্য নিরাপত্তার জন্য কৃষি জমি সংরক্ষণ প্রয়োজন, অন্যদিকে কলকারখানা স্থাপন এবং জনবসতির জন্য জমির প্রয়োজন। পাশাপাশি নদী ভাঙনের ফলে প্রতিবছর বিপুল পরিমাণ জমি হারিয়ে যাচ্ছে। এসব বিষয় বিবেচনায় নিয়ে জমির সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। আর এজন্য প্রয়োজন ভূমির বিজ্ঞানসম্মত তথ্য-উপাত্ত। আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে এখন সহজেই দেশের ভূ-প্রকৃতির গঠন এবং বৈশিষ্ট্য নির্ণয় করা যাবে। তিনি বলেন, সারাদেশের জমির গঠন-প্রকৃতি জানা থাকলে জমি ব্যবহারের কার্যকর পরিকল্পনা করা সহজ হবে। কোথায় শিল্প-কারখানা গড়ে উঠবে, কোন এলাকা কোন ফসলের জন্য বেশি উপযোগী, কোথায় বছরে ২ ফসল আবার কোথায় ৩/৪ ফসল জন্মানো সম্ভব, তা সহজে জানা যাবে। বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের বিচ্ছিন্নভাবে ভূপৃষ্ঠের তথ্য-উপাত্ত তৈরি এবং সংগ্রহ ও সংরক্ষণ করার কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এনএসডিআই গঠন হলে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে এ সংক্রান্ত তথ্য-উপাত্ত বিনিময় সহজ হবে। এসব তথ্য-উপাত্ত প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য আইনের প্রয়োজনীয়তার কথা তুলে ধরে তথ্য সংরক্ষণ নিয়ে একটি নীতিমালার কথাও বলেন প্রধানমন্ত্রী। একই ডোমেইন থেকে ডেটা ব্যবহারের ফলে অর্থ ও সময়ের সাশ্রয় এবং দেশের উন্নয়ন কার্যক্রম গতিশীল ও ত্বরান্বিত হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। বাংলাদেশ জরিপ অধিদপ্তর উপকূলবর্তী এলাকার ৪৮টি মানচিত্র প্রণয়ন করে দেশের সমুদ্রসীমা নির্ধারণে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে সহযোগিতা করেছে। এছাড়া পার্বত্য চট্টগ্রামসহ সমগ্র দেশের বৃহৎ স্কেলে ডিজিটাল মানচিত্র প্রণয়ন কার্যক্রম পরিচালনা করছে। ইতোমধ্যে ৯৮৮টি ম্যাপশিটের মধ্যে ৯০০টি ম্যাপশিট প্রস্তুত হয়েছে। পাশাপাশি ডিজিটাল এলিভেশন মডেল (ডিইএম)এবং ডিজিটাল টেরেইন মডেল (ডিটিএম) প্রস্তুতের কাজ চলছে। এ মডেলগুলো বন্যা, ঘুর্ণিঝড়, জলোচ্ছ্বাসসহ অন্যান্য প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলায় সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব কাজী হাবিবুল আউয়াল,সার্ভেয়ার জেনারেল ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. আবুল খায়ের, বাংলাদেশে জাইকার প্রতিনিধি মিকি ওহাতায়েদা এবং বাংলাদেশে জাপানের রাষ্ট্রদূত মাসাতো ওয়াতানাবে বক্তব্য রাখেন।
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীসেপ্টেম্বর - ২৪
ফজর৪:৩২
যোহর১১:৫১
আসর৪:১২
মাগরিব৫:৫৬
এশা৭:০৯
সূর্যোদয় - ৫:৪৭সূর্যাস্ত - ০৫:৫১
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
২৯০৭৩.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.