নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বুধবার ১১ মে ২০১৬, ২৮ বৈশাখ ১৪২৩, ৩ শাবান ১৪৩৭
বাজেটে এম, এস, প্রোডাক্টে ট্যারিফ মূল্যের ভিত্তিতে মূসক আরোপের দাবি
স্টাফ রিপোর্টার
আসন্ন ২০১৬-২০১৭ অর্থবছরের জাতীয় বাজেটে এম, এস, প্রোডাক্ট প্রস্তুতকরণ বা উৎপাদন ও সরবরাহ পর্যায়ে ট্যারিফ মূল্যের ভিত্তিতে মূসক আরোপ ও আদায় পদ্ধতি বজায় রাখার দাবিতে যৌথ সাংবাদিক সম্মেলন করেছে বাংলাদেশ অটো রি-রোলিং এন্ড স্টিল মিলস্ এসোসিয়েশন, বাংলাদেশ রি-রোলিং মিলস্ এসোসিয়েশন, বাংলাদেশ স্টিল মিল ওনার্স এসোসিয়েশন ও বাংলাদেশ শীপ ব্রেকার্স এসোসিয়েশন। গতকাল মঙ্গলবার সকালে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির মিলনায়তনে এ সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সাংবাদিক সম্মেলনে বাংলাদেশ অটো রি-রোলিং এন্ড স্টিল মিলস এসোসিয়েশনের সেক্রেটারি জেনারেল আবুল কাসেম মজুমদার তার লিখিত বক্তবে বলেন, রডসহ এম. এস পণ্য ভোক্তাদের ক্রয়সীমার মধ্যে রাখার স্বার্থে আসন্ন ২০১৬-২০১৭ অর্থবছরের জাতীয় বাজেটে এম, এস, প্রোডাক্ট প্রস্তুতকরণ বা উৎপাদন ও সরবরাহ পর্যায়ে ট্যারিফ মূল্যের ভিত্তিতে মূসক আরোপ ও আদায় পদ্ধতি বজায় রাখা। সাংবাদিক সম্মেলনে আরো উল্লেখ করা হয়, বিগত ২০০৪ সালে ভোক্তা ও আমরা রাজপথে যে আন্দোলন করেছিলাম সেই আন্দোলনের ফলে তৎসময়কার সরকার আমাদের শিল্পগুলিকে ২০০৪ সাল থেকে ট্যারিফের আওতায় নেয়। সেইসময় থেকে আমরা ট্যারিফ পদ্ধতিতে ভ্যাট পরিশোধ করে অদ্যাবধি আমাদের ব্যবসা পরিচালনা করে আসছি।

সভায় বলা হয় যে, সরকার ২০১৬-২০১৭ অর্থ বছর থেকে পুনরায় ১৫% ভ্যাট প্রথা চালু করতে যাচ্ছে। বর্তমানে স্টিল ও রি-রোরিং শিল্পগুলি রডের টন প্রতি ৮২৫ টাকা ভ্যাট পরিশোধ করে এর স্থলে ২০১৬-২০১৭ অর্থবছর টনপ্রতি ৭ হাজার ৫০০ টাকা ভ্যাট পরিশোধ করতে হবে। সভায় আরো বলা হয় যে, বর্তমানে প্রতিনিয়ত বিলেট তৈরির উপকরণ স্ক্র্যাপের টনপ্রতি পূর্বের আর্ন্তজাতিক মূল্য ১৬০ ইউএস ডলার থেকে বৃদ্ধি হয়ে ৩০০ ইউএস ডলারে উন্নীত হয়েছে, একইভাবে রড উৎপাদনের কাঁচামাল বিলেট-এর টনপ্রতি পূর্বের আর্ন্তজাতিক মূল্য ২৬০ ইউএস ডলার স্থলে ৪০০ ইউএস ডলারে উন্নীত হয়েছে। এই হার প্রতিনিয়ত বেড়েই চলছে, তা থেমে নেই। এই অবস্থায় বর্তমানে ভোক্তাদের ৪৫,০০০ থেকে ৫০,০০০ হাজার টাকা রেটে আমরা টন প্রতি রড দিতে পারছি কিন্তু এর সঙ্গে যদি আরো অতিরিক্ত ৭ হাজার ৫০০ টাকা যোগ হয় তাহলে ভোক্তাকে বর্তমান পণ্যেও রেটের সঙ্গে আরো ৭ হাজার ৫০০ টাকা বেশি দিয়ে রড ক্রয় করতে হবে। অর্থাৎ বর্তমান বাজারের ৫০,০০০ হাজার টাকার স্থলে ৫৭ হাজার ৫০০ টাকা রেইটে ভোক্তাদের রড ক্রয় করতে হবে। যেভাবে মেল্টিং স্ক্রাপ ও বিলেট-এর রেট আর্ন্তজাতিক বাজারে বেড়ে চলছে সেভাবে রড এর মূল্য ৫৭ হাজার ৫০০ টাকা থেকে পর্যায়ক্রমে বাড়তে থাকবে তার সঙ্গে ভ্যাটের পরিমাণ বাড়তে থাকবে। সেক্ষেত্রে দেশে সরকারের যে চলমান উন্নয়নের ধারাবাহিকতা চলছে তা সাংঘাতিকভাবে ব্যাহত হবে। কারণ আমাদের রডের প্রধান ব্যবহারকারী হচ্ছে সরকার। তার ব্যবহারের হার ৭০% এবং অন্যান্য ভোক্তা ৩০%, ইহাতে সরকারের উন্নয়নের বাজেট দ্বিগুণ করতে হবে। পাশাপাশি অন্যান্য ভোক্তা তার ক্রয় ক্ষমতা হারিয়ে ফেলবে। দেশে ব্যক্তি বিশেষ প্রাতিষ্ঠানিক যে উন্নয়নগুলি হচ্ছে তাও বাধাগ্রস্ত হবে এবং আমাদের ৪০ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগকৃত উদীয়মান স্টিল ও রি-রোলিং শিল্পগুলি পর্যায়ক্রমে বন্ধ হয়ে যাবে, এর সঙ্গে কর্মরত প্রায় ১০,০০,০০০ (দশ লক্ষ) লোক কর্মহীন হবে। এই অবস্থায় এম, এস, প্রোডাক্ট প্রস্তুতকরণ বা উৎপাদন ও সরবরাহ পর্যায়ে ট্যারিফ মূল্যের ভিত্তিতে মূসক আরোপ ও আদায় পদ্ধতি বজায় রাখা এবং বিদ্যমান হারে ঐ ট্যারিফ মূল্যে আসন্ন ২০১৬-২০১৭ অর্থবছরের জাতীয় বাজেটে অব্যাহত রাখার জন্য সাংবাদিক সম্মেলনে সরকারের প্রতি জোর দাবি জানানো হয়। আগামী ২০১৬-২০১৭ অর্থবছরের জাতীয় বাজেটে সরকার যদি স্টিল ও রি-রোলিং শিল্পে ১৫% ভ্যাট প্রয়োগে অনড় থাকে তাহলে দাবি আদায়ে রাজপথে আন্দোলনে সবাইকে শরীক হওয়ার জন্য আহবান জানানো হয়।

সংবাদিক সম্মেলনে বাংলাদেশ অটো রি-রোলিং এন্ড স্টিল মিলস এসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান শেখ মাসাদুল আলম মাসুদ-এর সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন- বাংলাদেশ স্টিল মিল ওনার্স এসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান শেখ ফজলুর রহমান বকুল, মো. শহিদউল্লাহ্, সুমন চৌধুরী, জহিরুল হক চৌধুরী, এম. মাকসুদুর রহমান, মো. আবু বকর সিদ্দিক, কাজী আনোয়ার আহমেদ মো. হুমায়ূন কবির প্রমুখ।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীসেপ্টেম্বর - ২২
ফজর৪:৩২
যোহর১১:৫২
আসর৪:১৪
মাগরিব৫:৫৮
এশা৭:১১
সূর্যোদয় - ৫:৪৭সূর্যাস্ত - ০৫:৫৩
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
২৫১৯২.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.