নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বুধবার ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ৩০ কার্তিক ১৪২৫, ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪০
সেমিনারে নাগরিক সমাজ
জাতীয় স্বার্থরক্ষায় কার্বন হরাসের লক্ষ্যমাত্রা বাড়াতে হবে
স্টাফ রিপোর্টার
জাতীয় স্বার্থ রক্ষায় কার্বন হরাসের লক্ষ্যমাত্রা বাড়াতে হবে বলে জোর আহ্বান জানিয়েছেন নাগরিক সমাজ। তারা বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে অতি বিপন্ন দেশগুলোর অন্যতম প্রতিনিধি হিসেবে বাংলাদেশকে কার্বন নিঃসরণের জন্য স্থায়ী ধনী দেশগুলোকে কার্বন নিঃসরণ কমানোর উচ্চমাত্রার লক্ষ্য নির্ধারণের একটি আইনি বাধ্যবাধকতা নিশ্চিত করার জন্য জোরালো অবস্থান গ্রহণ করতে হবে। গতকাল জাতীয় প্রেসক্লাবে 'কপ ২৪ জলবায়ু সম্মেলন: প্যারিস চুক্তির বাস্তবায়নে নাগরিক সমাজের প্রত্যাশা' শীর্ষক এক সাংবাদিক

সম্মেলন থেকে আসন্ন কপ ২৪ জলবায়ু সম্মেলনে জাতীয় স্বার্থে ভূমিকা পালনের জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান অধিকারভিত্তিক ১০টি নাগরিক সমাজ সংগঠন।

বিশ্বের তাপমাত্রা ক্রমাগতভাবে বেড়ে যাওয়ার কারণে ধনী দেশগুলোকে কার্বন নিঃসরণ কমাতে উচ্চমাত্রার লক্ষ্য নির্ধারণে গুরুত্ব দিয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. হাসান মাহমুদ এমপি বলেন, কার্বন কমানোর যে প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়েছে, সবগুলো দেশ সেই প্রতিশ্রুতি পালন করলেও বৈশ্বিক তাপমাত্রা বেড়ে যাবে ৩ ডিগ্রি হারে। এর পরেও প্যারিস চুক্তি বাস্তবায়নে ধনী দেশগুলোর অস্পষ্ট ভূমিকায় আমরা হতাশ। এ অবস্থার পরিবর্তনে নাগরিক সমাজকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে।

সভাপতির বক্তব্যে ড. কাজী খলিকুজ্জামান বলেন, আসন্ন জলবায়ু সম্মেলনের সফলতা নিয়ে আসলে সন্দেহ আছে, কারণ বৈশ্বিক তাপমাত্রা বৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রার চেয়েও নেপথ্যের অনেক রাজনীতি এর মূল নিয়ামক হয়ে দাঁড়াবে। আমাদের তাই নিজস্ব সক্ষমতার ওপর নির্ভর করে তৈরি হতে হবে, বাইরের সহায়তা আসলে ভালো। ড. আইনুন নিশাত বলেন, জলবায়ু আলোচনায় সরকারের অবস্থানে সুশীল সমাজ সংগঠনের মতামত প্রতিফলিত করতে হলে তাদের বক্তব্য শুনতে হবে। কোনও কারণে এই প্রক্রিয়াটি কিছুটা দুর্বল হয়ে গেছে, সরকারি-বেসরকারি বিশেষজ্ঞদের মধ্যে সমন্বয়ের প্রক্রিয়াটি শক্তিশালী করার উদ্যোগ নিতে হবে। আসন্ন কপ সম্মেলনে সক্ষমতা বৃদ্ধির ক্ষেত্রে সহায়তার বিষয়টি তুলে ধরার জন্যও তিনি পরামর্শ দেন।

এসএম মঞ্জুরুল হান্নান খান বলেন, জলবায়ু আলোচনায় সবসময়ই বাংলাদেশ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে, এই আলোচনায় সবসময়ই বাংলাদেশের সরকার এবং সুশীল সমাজ সংগঠনের প্রতিনিধিরা সমন্বিতভাবে বাংলাদেশের স্বার্থে অবদান রাখছে, এটা আমাদের একটি শক্তির জায়গা। এ বছরও আমরা সরবকারের অবস্থান প্রকাশ করবো এবং আলোচনা প্রক্রিয়ায় সুশীল সমাজের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করবো।

ইক্যুইটিবিডির রেজাউল করিম চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সেমিনারে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন একই প্রতিষ্ঠানের সৈয়দ আমিনুল হক।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীঅক্টোবর - ১৮
ফজর৪:৪১
যোহর১১:৪৪
আসর৩:৫২
মাগরিব৫:৩৪
এশা৬:৪৫
সূর্যোদয় - ৫:৫৭সূর্যাস্ত - ০৫:২৯
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
১১৯৬৮.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.