নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৪ অক্টোবর ২০২১, ২৯ আশ্বিন ১৪২৮, ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩
ভাববাদ ও বস্তুবাদের বিশেষ ব্যাখ্যা
রাশেদ রেহমান
বহুমাত্রিক লেখক শহিদুল ইসলাম নীরবের ব্যতিক্রমধর্মী সৃষ্টি 'ধর্মদর্শন ও বিস্ময়ের বিজ্ঞান' বইটি। লেখক সদ্য জাগ্রত চেতনা শুধুমাত্র সত্য আদর্শের প্রচার এবং বাস্তবতার নিখুঁত শিল্পায়নেই সীমাবদ্ধ নয় বরং অগ্রগামী বিজ্ঞানের আলোকে ধর্ম, দর্শন এবং মানবতার চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে অন্তরে অনুভব করতে চেয়েছেন পরম স্রষ্টা এবং সৃষ্টিকে। স্রষ্টা এবং সৃষ্টিকে গভীর উপলব্ধির মাধ্যমে সত্যানুসন্ধানের মৌলিক আগ্রহের শৈল্পিক প্রকাশই 'ধর্মদর্শন ও বিস্ময়ের বিজ্ঞান'।

লেখক বইটির শুরুতেই অকপটে স্বীকার করে নিয়েছেন, 'স্রষ্টা ও সৃষ্টিকে নিয়ে লেখা কঠিন বিষয়'। তবে পরবর্তীতে বিজ্ঞানময় বর্ণনা এবং ধর্মের প্রতিষ্ঠিত সত্যের অভূতপূর্ব সম্মিলনে স্রষ্টার অস্তিত্বকে উপলব্ধির সাহসী পদক্ষেপ দেখিয়েছেন তিনি। নিজেকে জানা কতটুকুু গুরুত্বপূর্ণ? নিজেকে জানার আদৌ কোনো প্রয়োজন আছে কি? সত্যানুসন্ধানি মানুষ মাত্রই জানেন নিজেকে জানার প্রচেষ্টা ছাড়া স্রষ্টা এবং সত্যের অনুসন্ধানের প্রচেষ্টা অত্যন্ত বোকামি। তাইতো লেখক মহান সাধক মনসুর হাল্লাজ, লালন সাঁইজি, সক্রেটিস প্রমুখের প্রতিষ্ঠিত দর্শনের সাথে সুর মিলিয়ে মহাগ্রন্থ পবিত্র আল কোরআনের আলোকে বস্তুবাদী বিজ্ঞানীদের নিরেট তত্ত্বের চেতনায় গেয়েছেন নিজেকে জানার গান। এ গান যেন স্রষ্টা এবং সমগ্র সৃষ্টির অভিন্ন সত্তার প্রতিষ্ঠিত প্রমাণপত্র। মানব ইন্দ্রিয়ের সীমাবদ্ধতা সত্য এবং বাস্তব অস্তিত্বকে উপলব্ধির পথে অন্তরায় হতে পারেনি। কেননা মানুষের জ্ঞান স্পৃহা এবং অধ্যবসায়ের ক্ষমতা প্রচ-। প্রকৃতির নীরব ভাষাকে উপলব্ধির অব্যার্থ হাতিয়ার গণিত শাস্ত্র। গণিত শাস্ত্রের সঞ্জীবনায় পদার্থ বিজ্ঞান, রসায়ন শাস্ত্র, জীববিজ্ঞানের আলোকে মানুষের সীমাবদ্ধ চেতনা প্রকৃতি অবাস্তব অস্তিত্বকে বোঝার দুরন্ত সাহস দেখিয়েছে।

লেখকের গাণিতিক ব্যাখ্যাসমৃদ্ধ সুসংহত বিবৃতির এই সাহসিকতার বাইরে নয়। মহাবিশ্বের উদ্ভব এবং পরিণতির অনন্ত জিজ্ঞাসা, ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র পরমাণু হতে সুদূর নক্ষত্র সর্বত্র বিরাজমান সুশৃঙ্খলতার অবলোকন লেখকের অনুসন্ধানি মনকে খানিক হলেও তৃপ্ত করেছে।

আত্মার অস্তিত্ব বিজ্ঞানের কোনো প্রতিষ্ঠিত সত্য নয়। কারণ হয়তো বিজ্ঞানের সীমাবদ্ধতা। তবে অনুভবের গভীরে গমন এবং দর্শনের তাত্তি্বক চেতনা আত্মার অস্তিত্বকে অস্বীকার করতে পারেনি।

লেখকের বর্ণনায় আশরাফুল মাখলুকাত মানুষের শ্রেষ্ঠত্ব, মহান স্রষ্টা কর্তৃক মানুষকে প্রতিনিধি নির্বাচন এবং সর্বশ্রেষ্ঠ মানুষ মোহাম্মদ (সা.)-র চিরন্তন আদর্শের আলোকে মানবধর্মের বিজয় বর্ণিত হয়েছে। সাম্যবাদ প্রতিষ্ঠায় ইসলামের অকুণ্ঠ সমর্থন লেখকের অন্যতম অনুপ্রেরণা। লেখক স্পষ্টতই বিভেদের বিপক্ষে। বিভেদ স্রষ্টার বিধান নয়। লেখকের বলিষ্ঠ অভিমত- পুঁজিবাদীরা পুঁজিবাদের অভিশাপেই নিশ্চিহ্ন হবে। লেখক এক বিশ্বসরকারের আগমনে বিশ্বাসী যিনি সাম্যবাদের বলিষ্ঠ প্রতীক। এই সাম্যবাদ সকল সত্যকে ধারণ করবে, এই সাম্যবাদ সকল শুদ্ধ চেতনায় মানবচেতনাকে করবে সমৃদ্ধ। এই সাম্যবাদের বিশ্বজনীন প্রতিষ্ঠা মানবসমাজে ত্বরান্বিত করবে শান্তি, স্রষ্টা এবং সৃষ্টির পবিত্র মিলনে বিশ্বসংসারের সকল অন্ধকার দূর হবে- লেখকের এটাই প্রত্যাশা।

যে কোনো বয়সের পাঠক যেকোনো সময় তার চিন্তার জগতকে সমৃদ্ধ করতে ডুব দিতে পারেন লেখক শহিদুল ইসলাম নীরবের 'ধর্মদর্শন ও বিস্ময়ের বিজ্ঞান' বইটিতে।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীঅক্টোবর - ২৫
ফজর৪:৪৪
যোহর১১:৪৩
আসর৩:৪৭
মাগরিব৫:২৮
এশা৬:৪১
সূর্যোদয় - ৬:০০সূর্যাস্ত - ০৫:২৩
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৫২০১.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.