নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, শুক্রবার ১৩ অক্টোবর ২০১৭, ২৮ আশ্বিন ১৪২৪, ২২ মহররম ১৪৩৯
সুনামগঞ্জের ধর্মপাশায় বাঁশের সাঁকোই একমাত্র অবলম্বন
সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি
সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলায় জীবন যাত্রা এখন বাঁশের সাঁকোই একমাত্র অবলম্বন। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলছে যানবাহনসহ ৪৫ গ্রামের আড়াই লাখ মানুষ। অনুসন্ধানে জানা যায়, ধর্মপাশা উপজেলার অবহেলিত ভাটি এলাকা বলে পরিচিত মধ্যনগর থানাধীন চামরদানী ইউনিয়ন ও মধ্যনগর ইউনিয়নের সীমাস্তে, ভারতের সীমান্ত এলাকাসহ টেকারঘাট-বাদাঘাট থেকে ধর্মপাশা উপজেলা সদর হয়ে মোহনগঞ্জ-নেত্রকোণা হয়ে ঢাকা যাওয়া আসার এক মাত্র সড়কের পিছ গাং নদীর ওপর কায়েতকান্দা নামক স্থানে বাঁশের চাটাই এর সাঁকোর ওপর দিয়ে প্রতিদিন শত শত যাত্রীবাহী মোটরসাইকেল সহ ৪৫টি গ্রামের প্রায় আড়াই লাখ মানুষ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছেন। বর্ষা মৌসুমে নৌকা।

স্বাধীনতার পর থেকে বিভিন্ন দলের এমপি নির্বাচিত হওয়ার আগে ব্রিজ নির্মাণের আশ্বাস দিলেও তা কার্যকর হয়নি। এলাকাবাসীর অভিযোগ, জনপ্রতিনিধি ও রাজনৈতিক নেতারা ব্রিজটি নির্মাণের এলাকাবাসীর সাথে প্রতারণা করে আসছেন। এই ব্রিজটি নির্মাণ হলে ৪৫টি গ্রামের প্রায় আড়াই লাখ মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন হবে বলে এলাকাবাসী। এলাকাবাসী আরো বলেন, বিভিন্ন দলের রাজনৈতিক নেতারা সংসদ নির্বাচনের ওয়াদা করেন যে, আমি বিজয়ী হলে প্রথমেই কায়েতকান্দা ব্রিজ ও মধ্যনগর বাজার এর ব্রিজ এ দুটি ব্রিজ খুব দ্রুতগতিতে বাস্তবায়ন করবো।

কিন্তু ক্ষমতায় গিয়ে নিজের আকের ঘোচাতে গিয়ে এলাকার উন্নয়ন ও পূর্বের প্রতিশ্রুতি ইত্যাদি ভুলে যান। মধ্যনগর ইউনিয়ন, চামরদানী, বংশীকুন্ডা উত্তর ও বংশীকুন্ডা দক্ষিণসহ ১০টি ইউনীয়নের প্রায় আড়াই লাখ মানুষ এ দুটি ব্রিজের অপেক্ষায় রয়েছেন। ঐ বাঁশের সাঁকো দিয়ে যাত্রীবাহী মোটরসাইকেল, নারী, বৃদ্ধ, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে। আর প্রতি নিয়ত দুর্ঘটনার শিকার হতে হচ্ছে।

ব্রিজ দু'টি নির্মাণ হলে জীবন মানের উন্নয়ন হবে বলে এলাকাবাসীর দাবি। এ ব্যাপারে বংশীকুন্ডা দক্ষিণ ইউপি চেয়ারম্যান মো.আজিম মামুদ বলেন, উপজেলা আমাদের এলাকা থেকে ধর্মপাশা উপজেলা সদর ২৭ কিলো মিটার দূরত্ব। এর মধ্যে কায়েতকান্দা ও মধ্যনগর বাজার সুমেস্ববরী নদীর ওপর একটি, দু'টি ব্রিজ নির্মাণ না হলে আমাদের ভোগান্তির শেষ নেই। বংশীকুন্ডা দক্ষিণ ইউনিয়ন বাসীর থেকে জনপ্রতিনিধি হিসেবে কর্মপক্ষের প্রতি আমার জোড়ালো দাবি ব্রিজ দু'টি জরুরি বৃত্তিতে নির্মাণের প্রয়োজন।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীঅক্টোবর - ২০
ফজর৪:৪২
যোহর১১:৪৪
আসর৩:৫১
মাগরিব৫:৩২
এশা৬:৪৪
সূর্যোদয় - ৫:৫৮সূর্যাস্ত - ০৫:২৭
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
২৪৩৫.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.