নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, শুক্রবার ১২ অক্টোবর ২০১৮, ২৭ আশ্বিন ১৪২৫, ১ সফর ১৪৪০
নাগেশ্বরীর ডোবায় নবজাতক রহস্য উন্মোচন
শিক্ষকের লালসার শিকার অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী
কচাকাটা (কুড়িগ্রাম) থেকে রফিকুল ইসলাম
আমি লেখাপড়ার পাশাপাশি লাভলু মাস্টারের বাড়িতে ঝি'র কাজ করি। লাভলু মাস্টারের স্ত্রী বাড়িতে থাকে না। একদিন কাজে গেলে লাভলু মাস্টার তার ঘরে ডেকে নেয় এবং বিছানা ঠিক করতে বলে। আমি বিছানা ঠিক করতে গেলে সে আমাকে জোর করে ধর্ষণ করে। এ কথা কাউকে বললে আমাকে মেরে ফেলার ভয় দেখায়। পরে আমি গর্ভবতী হয়ে পড়ি। ৬ মাস পেরিয়ে গেলে বিষয়টি আমার দাদিকে জানাই। পরে লাভলু মাস্টার আমাকে এবং দাদিকে ভয়ভীতি দেখিয়ে আমার গর্ভপাত ঘটায়। কেঁদে কেঁদে এ কথাগুলোই বলছিলো অষ্টম শ্রেণীতে পড়ুয়া কুমারী মাতা।

ঘটনাটির শিকার নাগেশ্বরী উপজেলার কচাকাটা থানার বলদিয়া ইউনিয়নের ইসলামাবাদ গ্রামের নজরুল ইসলামের মেয়ে শাহিবাজার বালিকা বিদ্যালয়ের উচ্চ বিদ্যালয়ে অষ্টম শ্রেণীর শিক্ষার্থী আশা (১৩) (ছদ্ম নাম)। শিক্ষকের লালসার শিকার ঐ শিক্ষার্থী গর্ভপাতের পর অসুস্থ হয়ে পড়ে। এদিকে প্রভাবশালীদের ভয়ে বাড়ি ছেড়েছে পুরো পরিবার।

ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসে গেল গত মঙ্গলবার দুপুরে কচাকাটা ইউনিয়নের সরকারটারী গ্রামের জননী ডায়াগনিস্টিক সেন্টার ও ক্লিনিকের মালিক পল্লী চিকিৎসক শহিদুল ইসলামের বাড়ির পাশের ডোবায় একটি ছেলে নবজাতক উদ্ধারের পর। মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় ঐদিন পুলিশ জননী ডায়াগনিস্টিক সেন্টার ও ক্লিনিকের মালিক শহিদুল ইসলাম ও কুমারী মাতার ফুপা ফরিদুল ইসলামকে আটক করে। পরে বুধবার ৫৪ ধারায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করে কচাকাটা থানা পুলিশ।

অনুসন্ধানে জানা যায়, কুমারী মাতা মেয়েটির বাবা-মা দুজনই ঢাকায় শ্রমিকের কাজ করেন। অভাব অনটনের সংসারে দাদিসহ গ্রামে থাকে সে। লেখাপড়ার পাশাপাশি একই গ্রামের ছাত্তার আলীর ছেলে বলদিয়া হায়দাড়িয়া মাদ্রাসার কৃষি শিক্ষক এক সন্তানের জনক মাইদুল ইসলাম লাভলুর (৩২) বাড়িতে কাজ করতো সে। লাভলু মাস্টারের স্ত্রী জেলার রাজাহাটে চাকরি করার সুবাদে বাড়ি ফাঁকাই থাকতো। এই সুযোগে লম্পট শিক্ষক লাভলু মেয়েটিকে জোর করে ধর্ষণ করে এবং ঘটনা প্রকাশ করলে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। এ ঘটনায় গর্ভবতী হয়ে পড়ে মেয়েটি। এদিকে ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে গোপনে গর্ভপাত ঘটানোর তাড়া দেয় ঐ লম্পট শিক্ষক। পরিকল্পনা মোতাবেক মেয়ে ফুপা ফরিদুল ইসলাম জননী ক্লিনিকে নিয়ে যায় তাকে। ক্লিনিকের মালিক পল্লী চিকিৎসক শহিদুল ইসলাম নিজ বাড়িতে গর্ভপাত ঘটায় মেয়েটির। গর্ভপাতের পর ঐ মেয়ের শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে বিপদ ঘটতে পারে ভেবে তড়িঘড়ি করে বিদায় করে তাদের এবং মৃত নবজাতককে শহিদুলের বাড়ির পাশের ডোবায় ছুড়ে ফেলে দেয়া হয়। পরদিন সকালে মেয়ের ফুপা ফরিদুল গর্ভপাতের কন্ট্রাকের ৪ হাজার টাকা পরিশোধ করতে আসলে জনতার হাতে আটক হয়। ঘটনার দিন থেকে পলাতক রয়েছে লম্পট শিক্ষক লাভলু। বলদিয়া হায়দাড়িয়া মাদ্রায় গিয়ে জানা যায়, কয়েক দিন থেকে মাদ্রাসায় উপস্থিতি নেই তার। মাদ্রাসার সুপার মতিয়ার রহমান জানান, ঘটনাটি প্রকাশের পর থেকে ঐ শিক্ষক মাদ্রাসায় অসে না। সে তিনদিনের ছুটি নিয়েছে। বলদিয়া ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ সভাপতি আব্দুস ছাত্তার বিএসসি জানান, যে শিক্ষক একজন অসহায় নাবালিকা মেয়ের সর্বস্ব লুটে নেয় তাকে দিয়ে শিক্ষকতা চলতে দেয় যায় না। তার সর্বোচ্চ শাস্তি হওয়া দরকার। মেয়ে বাবা নজরুল ইসলাম জানান, ঘটনাটি আমি জানার পর ঢাকা থেকে এসেছি।

এ বিষয়ে আমি থানায় মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছি। কচাকাটা থানার ওসি ফারুক খলিল জানান, নবজাতকের মরদেহ ডিএনএ পরীক্ষার জন্য রংপুরে পাঠানো হয়েছে। আটকদের ৫৪ ধারায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের মাধমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীনভেম্বর - ১১
ফজর৫:১০
যোহর১১:৫২
আসর৩:৩৭
মাগরিব৫:১৬
এশা৬:৩৩
সূর্যোদয় - ৬:৩০সূর্যাস্ত - ০৫:১১
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৩৪৬০.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.