নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১০ অক্টোবর ২০১৯, ২৫ আশ্বিন ১৪২৬, ১০ সফর ১৪৪১
নগরকান্দা পৌরসভা যেন ক্যান্সারে আক্রান্ত
নগরকান্দা (ফরিদপুর) থেকে মিজানুর রহমান
ফরিদপুরের নগরকান্দা পৌরসভা দীর্ঘদিন ধরে ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে শেষ হয়ে যাচ্ছে অথচ দেখভাল করার কেউ আছে বলে মনে হয় না। পৌরসভার প্রধান কার্যালয় দেখে তাই মনে হয়। দেশের মধ্যে এমন রুগ্ন পৌরসভা কোথাও আছে বলে মনে হয় না। নামেমাত্র পৌরসভা, নেই কোনো পৌরসভার নিজস্ব ভবন। জেলা পরিষদের জায়গা ডাক বাংলা নামে অতি পরিচিত সেই ভবনে নগরকান্দা পৌরসভা কার্যালয়।

সরকারিভাবে এই পৌরসভার উন্নয়নের জন্য কোটি কোটি টাকা বরাদ্দ এলেও তা গায়েবী কিতাবে সীমাবদ্ধ। পৌরসভা কার্যালয়ের চারপাশ দখল করে নিয়েছে স্থানীয় প্রভাবশালী মহল।

এখন শুধু দখল বাকি পৌর কার্যালয়। খাতা কলমে নগরকান্দা পৌরসভার নাম থাকলেও বাস্তবে পৌরসভার কোনো চিত্র খুঁজে পাওয়া মুশকিল। পৌর এলাকায় উপজেলা চত্বরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার তদারকি আর ব্যবস্থাপনায় কিছুটা উন্নয়ন চোখে পড়লেও এছাড়া পৌর উন্নয়নের বালাই নাই বললেই চলে।

উন্নয়নের নামে চলছে লুটপাটের মহামারী। পৌর এলাকায় সন্ধ্যা হলেই নেই আলোর ব্যবস্থা। পৌরসভার কোথাও কোথাও নিম্নমানের ল্যাম্পপোস্ট লাইট ব্যবহার করায় তা মাস না পেরোতেই ফিউজ। অন্ধকারে চলতে হয় পথচারীসহ পৌরবাসীর। রাস্তা সংস্করণ না করায় এছাড়া কিছু রাস্তায় নিম্নমানের কাজ করায় তা পৌরবাসীর চলাচল ব্যাহত হচ্ছে।

পৌরসভায় চলতি বছর প্রায় ৮ লাখ টাকা ডেঙ্গু মশা মারার নামে ভেলকি বাজির খেলা দেখিয়ে গ্রাস করে নেয় লুটপাট চক্র। পৌরসভার উন্নয়ন কাজে মহা লুটপাট চলছে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম। প্রকাশ হলেও কি কারণে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা নীরব তা জনমনে প্রশ্ন হয়ে দাঁড়িয়েছে।

দুর্নীতি করেই সচিব আলিম মোল্লার বদলি হলেও অনিয়মের চাকা থেমে নেই। পৌরসভায় যে সকল জনবল নিয়োজিত রয়েছেন তাদের মধ্যে অনেকেই মাসে দুই একদিনও পা রাখে না, মাস শেষে তারা নিচ্ছেন বেতন ভাতাসহ নানা সুবিধা।

সুপেয় পানির জন্য নেই কোনো ব্যবস্থা তবুও ট্যাঙ্ হিসাব তালিকায়। নেই উন্নত ড্রেনেজ ব্যবস্থা। পৌরসভা কার্যালয়ের সামনে পড়ে থাকা অযত্নে অবহেলায় উন্নয়ন কাজে ব্যবহৃত একটি ডলনাই তার জ্বলন্ত প্রমাণ। পৌরসভার কাজে যে সকল যানবাহন রয়েছে তা ধ্বংসের পথে। এ সকল যানবাহনের ড্রাইভারও কোনো কাজ না করেই মাস শেষে ব্যাংক থেকে তুলে নিচ্ছেন টাকা। কাজের কাজ না করেই ফাঁকা হচ্ছে পৌরসভার অর্থায়ন।

পৌর মেয়র রায়হান মিয়া অসুস্থ থাকায় এ বিষয়ে তার বক্তব্য জানা যায়নি।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীঅক্টোবর - ২৩
ফজর৪:৪৩
যোহর১১:৪৩
আসর৩:৪৯
মাগরিব৫:২৯
এশা৬:৪২
সূর্যোদয় - ৫:৫৯সূর্যাস্ত - ০৫:২৪
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
২৪৭২.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.