নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বৃহস্পতিবার ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২৮ ভাদ্র ১৪২৬, ১২ মহররম ১৪৪১
ভৈরবে কাজের মেয়েকে লাঠিপেটা ও গরম পানি দিয়ে অমানুষিক নির্যাতন, স্বামী-স্ত্রী আটক
ভৈরব প্রতিনিধি
কিশোরগঞ্জের ভৈরব বাজারের বাতাশাপট্টি এলাকার একটি বাসায় আসবাবাপত্র পরিস্কার করতে গিয়ে অসতর্কাবস্থায় একটি কাঁচের চুড়ি ভেঙে ফেলায় সাদিয়া নামের ১৮ বছরের এক গৃহকর্মীকে নির্যাতন করেছে বাসার গৃহকর্তা ও গৃহকর্ত্রী। গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় তানভীর রাফসান সাদলি ও মেহেরুন্নেসা অপি দম্পতির হাতে নিষ্ঠুর নির্যাতনের শিকার হয় সাদিয়া। মুমূর্ষু অবস্থায়

নির্যাতিতা সাদিয়া ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেঙ্ েচিকিৎসাধীন রয়েছেন। এঘটনায় অভিযুক্ত স্বামী-স্ত্রীকে আটক করেছে পুলিশ। সাদিয়া ময়মনসিংহের তারাকান্দা থানার কাকনি গ্রামে পিতামাতাহীন । জন্মের পর পরই সাদিয়ার পিতামাতা মারা যায়। সে থেকে সাদিয়ার এক দুরসম্পর্কের খালার কাছেই বড় হতে থাকে সাদিয়া।

নির্যাতিতা গৃহকর্মী সাদিয়া জানান, ঘটনার দিন বাসার ওয়্যারড্রপ পরিষ্কার করার সময় অসতর্কতাবশত তার হাতের ধাক্কা লেগে চুড়ি রাখার একটি আলনা মেঝেতে পড়ে যায়। এতে একটি কাঁচের চুরি ভেঙে যাওয়ায় তার উপর চড়াও হন গৃহকর্ত্রী মেহেরুন্নেসা অপি। প্রথমে লাঠি দিয়ে তাকে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করে ছুরি দিয়ে আঘাত করে চোখে গুরুতর জখম করা হয়। এতেই খান্ত হননি নিষ্ঠুর গৃহকর্ত্রী অপি বেগম। লাঠিপেটা করে ক্লান্ত হয়ে যায়। পরে গরম পানি এনে গৃহকর্মী সাদিয়ার শরীরে ঢেলে দেন তিনি। কিছুক্ষণ পর গৃহকর্তা তানভীর রাফসান সাদলি ঘটনা শুনে তিনিও বাসায় আসেন। এসে তিনিও স্ত্রীকে সাথে নিয়ে অসহায় গৃহকর্মী সাদিয়াকে বেধড়ক লাঠিপেটা করেন। এসময় নিজের আত্মরক্ষার্থে কোনো রকমে বাসা থেকে পালিয়ে রাস্তার কয়েকজনের সহযোগিতায় হাসপাতালে আসে গৃহকর্মী সাদিয়া।

পরবর্তীতে এগারো বছর বয়সে সাদিয়াকে ভৈরবে সাদলি-অপি দম্পতির বাসায় কাজের মেয়ে হিসেবে নিয়ে আসে তার খালা রেহেনা বেগম। প্রথমদিকে সাদিয়ার প্রতি ওই দম্পতির স্বাভাবিক মনোভাব থাকলেও বছর দুয়েক যাওয়ার পর থেকেই তুচ্ছ ঘটনাতেই সাদিয়ার উপর নেমে আসে নির্মম নির্যাতন। প্রায়ই তাকে কারণে-অকারণে লাঠিপেটাসহ গরম খুন্তির ছেকা দেওয়ার মতো বর্বর নির্যাতন করা হতো। এমনকি বাসার সবাই কোথাও বেড়াতে গেলেও সাদিয়াকে তালাবদ্ধ করে রেখে যাওয়া হতো। এঘটনায় অভিযুক্তদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন সাদিয়ার দূরসম্পর্কের একমাত্র স্বজনও। গৃহকর্মীর খালা রেহেনা বেগম জানান, পিতা মাতাহীন অসহায় গরিব মেয়ে সাদিয়াকে আমি ওই বাসায় ৫ বছর পূর্বে গৃহকর্মীর কাজে দিয়েছিলাম। প্রথম দিকে কিছু দিন তাদের আচরণ ভালই ছিল। বছর পেরিয়ে গেলে একবার অভিযোগ তুলে সাদিয়া এক ভরি ওজনের স্বর্ণের চেইন চুরি করেছে। যতদিন যাবত চেইনের টাকা পরিশোধ না হবে ততদিন এ বাসা থেকে সাদিয়া কোথাও বেরোতে পারবে না। আজ খবর পেয়ে দেখি এ অবস্থা। আমি ওরা স্বামী-স্ত্রীর বিচার চাই আপনাদের মাধ্যমে সরকারের কাছে।

চিকিৎসক বলেন, মেয়েটিকে মারাত্মকভাবে নির্যাতন করা হয়েছে দেখতে পাচ্ছি। আমরা চিকিৎসা সেবা দিচ্ছি। সুস্থ হতে আরো কয়েকদিন সময় লাগবে।

ভৈরব থানার ওসি (তদন্ত) বাহালুল খান বাহার জানান, এদিকে অভিযোগ পাওয়ার পর মঙ্গলবার দিবাগত মধ্যরাতে অভিযুক্ত ঐ দম্পতিকে আটক করেছে ভৈরব থানা পুলিশ। এছাড়াও এ বিষয়ে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ প্রক্রিয়াধীন আছে বলেও জানায় পুলিশ।
এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীঅক্টোবর - ১৮
ফজর৪:৪১
যোহর১১:৪৪
আসর৩:৫২
মাগরিব৫:৩৪
এশা৬:৪৫
সূর্যোদয় - ৫:৫৭সূর্যাস্ত - ০৫:২৯
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৩১৩৮.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.