নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, শনিবার ১০ আগস্ট ২০১৯, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৬, ৮ জিলহজ ১৪৪০
মুগদা হাসপাতালে ডাক্তার ও কর্মচারীরা অনুপস্থিত ডেঙ্গু রোগীদের দুর্ভোগ ও হয়রানি
স্টাফ রিপোর্টার
রাজধানীর মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ডাক্তার-কর্মচারীরা সরকারি নির্দেশ উপেক্ষা করে ছুটি কাটানোয় গতকাল শুক্রবার শত শত ডেঙ্গু রোগী চিকিৎসা নিতে এসে চরম দুর্ভোগ ও হয়রানির শিকার হয়েছেন। জরুরি বিভাগে মাত্র একজন ডাক্তার রোগীদের চিকিৎসাসেবা দিলেও তিনি নিজেও ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত থাকায় রোগীরা প্রয়োজনীয় চিকিৎসাসেবা থেকে বঞ্চিত হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার ছিল সরকারি ছুটির দিন। ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সরকার হাসপাতালের সকল ডাক্তার, নার্স, আয়া, টেকনিশিয়ানসহ বিভিন্ন বিভাগে নিয়োজিতদের ছুটি বাতিল ঘোষণা করেছেন।

কিন্তু মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে সেই নির্দেশ মানা হয়নি। শুধু জরুরি বিভাগ ছাড়া বন্ধ ছিল সকল বিভাগ। এ পরিস্থিতিতে গতকাল শুক্রবার মুগদা হাসাপাতালে শত শত ডেঙ্গু রোগীর ভিড় জমে উঠে। শুধু জরুরি বিভাগে নিয়োজিত একজন ডাক্তারের উপর শত শত ডেঙ্গু রোগীর চাপ পড়ে। এতে ডাক্তার নিজে আরও অসুস্থ হয়ে পড়েন। এ ব্যাপারে জরুরি বিভাগে নিয়োজিত ওই ডাক্তার খালেদ মাহমুদ জানান, তিনি নিজেও ডেঙ্গু রোগে ভুগছেন। অন্য ডাক্তারদের অনুপস্থিত থাকার কথা জানতে চাইলে তিনি জানান, তারা আসেননি। এ পরিস্থিতিতে নার্স, আয়া, বয়সহ নিম্ন শ্রেণীর কর্মচারীদের কাছে জিম্মি হয়ে পড়েছেন রোগীরা বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগী কয়েকজন রোগী।

সরজমিনে দেখা যায়, মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে প্রতিদিন শত শত ডেঙ্গুতে আক্রান্ত রোগী চিকিৎসা নিতে ভিড় জমাচ্ছেন। বহিঃবিভাগে নিজেদের নাম রেজিস্ট্রেশন করতে গিয়ে চরম হয়রানি ও দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন ডেঙ্গু রোগীরা। অনেকেই রেজিস্ট্রেশন করতে না পেরে চিকিৎসা নিতেও পারছেন না। বিনা চিকিৎসায় ফিরে যাচ্ছেন। এখানে একটি দালালচক্র সক্রিয় থাকায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বলে রোগীদের অভিযোগ। গতকাল শুক্রবার সরকারি নির্দেশ অনুযায়ী হাসপাতাল খোলা থাকার কথা থাকলেও শুধু জরুরি বিভাগ খোলা থাকতে দেখা যায়। সেখানে একজন দায়িত্বরত চিকিৎসক শত শত রোগীর চিকিৎসা দিতে গিয়ে নিজেও অবর্নণীয় দুর্ভোগের শিকার হন। এমনকি তিনি নিজেও ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে পড়েছেন বলে দায়িত্বরত ওই ডাক্তার জানিয়েছেন। এছাড়া ডেঙ্গু পরীক্ষার নামে এই হাসপাতালে চলছে বাণিজ্য। রোগীদের বাইরের ক্লিনিক ও ডায়গনস্টিক সেন্টারে ডেঙ্গু পরীক্ষার জন্য পাঠিয়ে দেয়া হচ্ছে। এতে রোগীদের অতিরিক্ত অর্থ খরচসহ ভুল পরীক্ষার শিকার হচ্ছেন বলে অনেক রোগী অভিযোগে জানিয়েছেন।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীসেপ্টেম্বর - ১৬
ফজর৪:২৯
যোহর১১:৫৪
আসর৪:১৯
মাগরিব৬:০৫
এশা৭:১৮
সূর্যোদয় - ৫:৪৫সূর্যাস্ত - ০৬:০০
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৯২০৮.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.