নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, শনিবার ১০ আগস্ট ২০১৯, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৬, ৮ জিলহজ ১৪৪০
সুইসাইড নোটে আমার মৃত্যুর জন্য তিন জন দায়ী
নাঙ্গলকোটে গৃহশিক্ষিকার আত্মহত্যা
নাঙ্গলকোট (কুমিল্লা) থেকে মো. রেজাউল করিম রাজু
আমি অন্যায় করার পর মাফ চেয়েছি। কিছু কথা বলার পর তাদের কাছে মাফ চাইছি। তারা বলে ঈদের পর দরবার করবে। এই ভয়ে আমি ফাঁসি দিতে বাধ্য। আমার বাবা মায়ের কাছে অনুরোধ, তারা যেন আমারে মাফ করে যেন। আমি কিছু কথা বলার কারনে, আমার ছাত্র-ছাত্রীদের অভিভাবক নাজমা আক্তার ও তার মা, শাশুড়ি আমার মরণের কারণ। তারা তিনজন আমার মৃত্যুর জন্য দায়ী। গত ৫ আগস্ট সোমবার একটি সুইসাইড নোট লিখে আত্মহত্যা করেছেন তাহেরা আক্তার (১৮) নামের এক গৃহশিক্ষিকা। সে কুমিল্লা জেলার নাঙ্গলকোট উপজেলার জোড্ডা পশ্চিম ইউপির নোয়াপাড়া গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্য মজিবুর রহমানের মেয়ে। অনুসন্ধানে জানা যায়, দীর্ঘ প্রায় দুই বছর ধরে একই গ্রামের পাশের বাড়ির প্রবাসী আলমগীর ও নাজমার মেয়েকে আরবী প্রাইভেট পড়াতেন তাহেরা আক্তার। যার ফলে প্রতিদিন যাতায়াত ছিল তাদের বাড়িতে। কলেজে পড়ুয়া নাজমার মেয়ের সাথে এক পলি্ল বিদ্যুৎ কর্মীর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। যা দেখেছিল তাহেরা। পরে তাহেরা বিষয়টি তার ছাত্র-ছাত্রীদের কাছে বলেন। ছাত্র-ছাত্রীরা তাদের মা নাজমাকে এ বিষয়টি জানান। প্রতিদিনের মত তাহেরা গত ৫ আগস্ট সোমবার বিকেলে আরবী প্রাইভেট পড়ানোর জন্য তাদের বাড়িতে গেলে নাজমা তাহেরাকে কটুবাক্যে বিভিন্ন ধরনের কথা বলেন। ঈদের সময় মেয়ে বাড়িতে আসুক তোর কঠিন বিচার হবে। আমার মেয়ের বিষয়ে এসব কি বলছ তা প্রমাণ করতে হবে। তাহেরা এ সময় নাজমা ও তার মা, শাশুড়ির কাছে ক্ষমা চাইলে তারা ক্ষমা করেনি। পরে সে বাড়ি চলে এসে একটি সুসাইড নোট লিখে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। বিষয়টি নিয়ে গ্রামবাসীর মধ্যে ধম্রজাল সৃস্টি হয়। এ বিষয়ে অভিযুক্ত নাজমা বলেন, আমি হেসে হেসে তাহেরাকে বলছি, তুই ছোট ছোট ছেলে মেয়েদের কাছে এসব কি বলছত। আমার মেয়ে ঈদের সময় বাড়িত আসলে তা প্রমাণ হবে। পাশাপাশি তোরও কঠিন বিচার হবে। পরে সে বাড়িতে চলে যায়। তাহেরা যে ফাঁসি দিবে আমার জানা ছিল না।

নিহতের পিতা মুজিবুর রহমান জানান, আমার মেয়ে ও ওই পরিবারের সাথে কারো কোন বিরোধ ছিল না। তবে কি কারনে সে আত্মহত্যা করেছে তা আমি জানি না। এ বিষয়ে নাঙ্গলকোট থানার ওসি নজনুল ইসলাম পিপিএম বলেন, নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পর পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনার তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীনভেম্বর - ১৫
ফজর৪:৫৪
যোহর১১:৪৩
আসর৩:৩৭
মাগরিব৫:১৬
এশা৬:৩১
সূর্যোদয় - ৬:১২সূর্যাস্ত - ০৫:১১
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
১২২০৫.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.