নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, সোমবার ১০ আগস্ট ২০১৫, ২৬ শ্রাবণ ১৪২২, ২৪ শাওয়াল ১৪৩৬
কমেছে পাসের হার ও জিপিএ-৫
এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষায় গড় পাসের হার ৬৯ দশমিক ৬০ শতাংশ : পাসে মেয়েরা, জিপিএ-৫ এ ছেলেরা এগিয়ে
কাজী মাহফুজুর রহমান শুভ
এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষায় এই বছর ৬৯ দশমিক ৬০ শতাংশ পাস করেছে। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪২ হাজার ৮৯৪ জন। মাদ্রাসা বোর্ডে ৯০ শতাংশ ও কারিগরি বোর্ডে পাসের হার ৮৫ দশমিক ৬৮। এ বছর এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় আটটি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড, মাদ্রাসা বোর্ড ও কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের পাসের হার গত বছরের তুলনায় ৮ দশমিক ৭৩ শতাংশ কমেছে। অন্যদিকে, জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা কমেছে ২৭ হাজার ৭০৮ জন। চলতি বছরের উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) ও সমমানের পরীক্ষায় গড় পাসের হার ৬৯ দশমিক ৬০ শতাংশ। সারাদেশে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪২ হাজার ৮৯৪ জন। গতবারের চেয়ে এবার গড় পাসের হার ও জিপিএ-৫ উভয়ই কমেছে।

ফলাফল অনুযায়ী, এ বছর আটটি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় ১০ লাখ ৬১ হাজার ৬১৪ জন শিক্ষার্থী অংশ নেন। এর মধ্যে পাস করেছেন ৭ লাখ ৩৮ হাজার ৮৭২ জন। গড় পাসের হার ৬৯ দশমিক ৬০ শতাংশ। গতবার সারাদেশে গড় পাসের হার ছিল ৭৮ দশমিক ৩৩ শতাংশ। এবার সারাদেশে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪২ হাজার ৮৯৪ জন। গতবার জিপিএ-৫ পেয়েছিল ৭০ হাজার ৬০২ জন। ১ এপ্রিল শুরু হয়ে ১১ জুন পর্যন্ত লিখিত পরীক্ষা চলে। এরপর ১৩ থেকে ২২ জুন পর্যন্ত হয় ব্যবহারিক পরীক্ষা।

শিক্ষামন্ত্রী গতকাল দুপুর ১টায় সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে ফলাফলের বিস্তারিত তুলে ধরবেন। এর আগে সকাল ১০টায় শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ গণভবনে একটি ট্যাবের মাধ্যমে ফলাফলের ডিজিটাল অনুলিপি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে তুলে দেন। বিভিন্ন শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানরা এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন। দুপুর ২টা থেকে অনলাইনে এবং মোবাইলে এসএমএস করে ফল পাওয়া যায়। এ বছর মেধা ভিত্তিতে সেরা কলেজের তালিকা আর ছিল না। সেরা কলেজের তালিকায় থাকার জন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো অনৈতিক পন্থা বেছে নেয় এমন অভিযোগ তুলে এ তালিকা না তৈরির সিদ্ধান্ত নেয় মন্ত্রণালয়।

গতকাল রোববার সকালে গণভবনে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের কাছ থেকে এবারের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল গ্রহণের পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বিএনপি-জামায়াত চক্র পরীক্ষার সময় আত্মঘাতী কর্মকা-ে লিপ্ত না হলে চলতি বছরের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল আরো ভালো হতো বলে মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, এটা খুবই দুঃখজনক যে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার সময় বিএনপি-জামায়াত চক্র হরতাল ও অবরোধ ডেকে মানুষ পুড়িয়ে হত্যা, অগি্নসংযোগ এবং সরকারি-বেসরকারি সম্পত্তি ধ্বংসের মতো নৃশংস অপরাধে জড়িত ছিল। পরীক্ষার সময় তারা এ ধরনের আত্মঘাতী কর্মকা- না চালালে এ বছরের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল আরো ভাল হতো।

প্রধানমন্ত্রী শিক্ষার্থীদের অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, প্রতিকূল পরিস্থিতিতে পরীক্ষা নেয়া ও দেয়া খুবই কষ্টকর ও ঝুঁকিপূর্ণ। কিন্তু আমাদের ছেলেমেয়েরা এসব বাধা অতিক্রম করে পরীক্ষা দিয়েছে এবং সফল হয়েছে-এটি এক বিরাট সাফল্য। এবার যারা পাস করতে পারেনি তারা আগামীতে আরো ভালোভাবে লেখাপড়া করে সফল হবে বলেও আশা প্রকাশ করেন শেখ হাসিনা।

শান্তিপূর্ণভাবে পরীক্ষা অনুষ্ঠানের জন্য শিক্ষক, শিক্ষা বোর্ডের কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে অভিনন্দন জানিয়েছেন তিনি।

এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার সময় বিএনপি-জামায়াতের লাগাতার হরতাল ও অবরোধের কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা আরো বলেন, সে সময় বাংলাদেশে বড় ধরনের সমস্যা চলছিল। যা ছিল মানব সৃষ্ট সমস্যা। বিএনপি-জামায়াত ঐ দুই পরীক্ষা শুরুর আগে হরতাল দিয়েছিল। কিন্তু পরীক্ষা যখন শুরু হলো তখন তারা হরতালের সঙ্গে অবরোধ কর্মসূচিও ঘোষণা করলো। এরপর তারা তথাকথিত আন্দোলনের নামে গাড়ি জালিয়ে মানুষ পুড়ে হত্যা শুরু করলো।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এটা তারাই করেছে যারা যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচাতে চায়, শিক্ষার কণ্ঠরোধ করতে চায় এবং দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতি বাধাগ্রস্ত করতে চায়। এটা তাদেরই চক্রান্ত ছিল যারা ক্ষমতায় থাকার সময় মানুষের উপর অত্যাচার-জুলুম করেছে, দুর্নীতি ও লুটপাট করে বিদেশে টাকা পাঠিয়েছে।

ফল হস্তান্তর অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব নজরুল ইসলাম খান। উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব সুরাইয়া বেগম, প্রধানমন্ত্রী প্রেস সচিব ইহসানুল করিম, দেশের ১০ শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জেষ্ঠ্য কর্মকর্তারা।

ফল পুনঃনিরীক্ষা : আগামী ১০ থেকে ১৬ আগস্ট পর্যন্ত এইচএসসি ও সমমানের ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন করা যাবে। রাষ্ট্রায়ত্ত মোবাইল অপারেটর টেলিটক থেকে এ আবেদন করতে হবে।

আন্তঃবোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক শ্রীকান্ত কুমার চন্দ জানান, রাষ্ট্রায়ত্ত মোবাইল অপারেটর টেলিটক থেকে আগামী ১০ থেকে ১৬ আগস্ট পর্যন্ত এইচএসসি ও সমমানের ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন করা যাবে। প্রতিটি বিষয় ও প্রতি পত্রের জন্য দেড়শ' টাকা হারে চার্জ কাটা হবে। যে সব বিষয়ের দুটি পত্র (প্রথম ও দ্বিতীয় পত্র) রয়েছে যে সকল বিষয়ের ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন করলে দুটি পত্রের জন্য মোট ৩০০ টাকা ফি কাটা হবে। একই এসএমএসে একাধিক বিষয়ের আবেদন করা যাবে, এক্ষেত্রে বিষয় কোড পর্যায়ক্রমে 'কমা' দিয়ে লিখতে হবে।

তিনি জানান, ফল পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন করতে জঝঈ লিখে স্পেস দিয়ে বোর্ডের নামের প্রথম তিন অক্ষর লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্ব্বর লিখে স্পেস দিয়ে বিষয় কোড লিখে ১৬২২২ নম্ব্বরে পাঠাতে হবে। ফিরতি এসএমএসে ফি বাবদ কত টাকা কেটে নেয়া হবে তা জানিয়ে একটি পিন নম্ব্বর (পার্সোনাল আইডেন্টিফিকেশন নম্ব্বর-চওঘ) দেয়া হবে। আবেদনে সম্মত থাকলে জঝঈ লিখে স্পেস দিয়ে ণঊঝ লিখে স্পেস দিয়ে পিন নম্ব্বর লিখে স্পেস দিয়ে যোগাযোগের জন্য একটি মোবাইল নম্ব্বর লিখে ১৬২২২ নম্ব্বরে এসএমএস পাঠাতে হবে।

Fatal error: Uncaught exception 'PDOException' with message 'SQLSTATE[HY000]: General error: 26 file is encrypted or is not a database' in /home/janata/public_html/lib/newsHitCount.php:7 Stack trace: #0 /home/janata/public_html/lib/newsHitCount.php(7): PDO->query('Update newsHitC...') #1 /home/janata/public_html/lib/index.php(135): require('/home/janata/pu...') #2 /home/janata/public_html/web/details.php(10): lib->newsHitCount() #3 /home/janata/public_html/web/index.php(28): include('/home/janata/pu...') #4 /home/janata/public_html/index.php(15): include('/home/janata/pu...') #5 {main} thrown in /home/janata/public_html/lib/newsHitCount.php on line 7