নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, মঙ্গলবার ১৮ জুলাই ২০১৭, ৩ শ্রাবণ ১৪২৪, ২৩ শাওয়াল ১৪৩৮
ব্রেঙ্টি আলোচনায় করবিনকে চায় ইউরোপীয় ইউনিয়ন
জনতা ডেস্ক
ব্রেঙ্টি নিয়ে যুক্তরাজ্যের সঙ্গে ইউরোপীয় ইউনিয়নের আলোচনায় লেবার নেতা জেরেমি করবিনকেও অন্তর্ভূক্ত করা উচিত বলে মনে করছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন(ইইউ)। সংস্থার শীর্ষ কর্মকর্তা গাই ভেরহোফস্তাদ ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে'র কাছে আলোচনায় করবিনকে অন্তর্ভূক্ত করার প্রস্তাব দিয়েছেন। বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম খবরটি নিশ্চিত করেছে।

ইইউ-এর শীর্ষ কর্মকর্তা গাই ভেরহোফস্তাদ ইউরোপীয় পার্লামেন্টের ব্রেঙ্টি সমন্বয়কের ভূমিকা পালন করছেন। তিনি বলেছেন, নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারানো আসলে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর ব্রেঙ্টি পরিকল্পনাকে দুর্বল করে দিয়েছে। তাই ইইউ এর সঙ্গে আলোচনায় অন্যান্যদেরও যুক্ত করা উচিত। বেলজিয়ামের সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী মনে করেন, নির্বাচনের ফল আসলে থেরেসা মে'র জন্য আত্মঘাতী গোল হয়ে দাঁড়িয়েছে। তিনি বলেন, এখন আলোচনায় তারা বাকিদেরও নেবেন কিনা এটা সরকারের সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্টকে দেওয়ার সাক্ষাতকারে তিনি বলেন, ব্রেঙ্টি পুরো যুক্তরাজ্যের বিষয়। ব্রিটেনবাসীকে এটা প্রভাবিত করবে। একটি নির্দিষ্ট রাজনৈতিক দলের চেয়ে এটা অনেক বড় বিষয়। এর সঙ্গ অনেকের জীবন জড়িত। তিনি আরও বলেন, আমি বিশ্বাস করি আলোচনায় আরও মানুষের অংশ নেওয়া উচিত। আর মত আসতে পারে এতে। নির্বাচনের ফলের পর এটা স্পষ্ট যে ব্রেঙ্িিট নিয়ে থেরেসা মে'র পরিকল্পনা একটু কঠিনই হবে।

আলোচনায় অন্য দলের নেতা অন্তর্ভূক্ত করা উচিত হবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে ভেরহোফস্তাদের মুখপাত্র বলেন, থেরেসা মে এখন পর্যন্ত খুবই দুর্বলভাবে আলোচনা চালিয়েছেন। কাউকে অন্তর্ভূক্ত করাটা ভালো সিদ্ধান্ত হবে। তবে বিষয়টি পুরোপুরি ব্রিটিশ সরকারের উপর নির্ভর করছে।

ব্রেঙ্টি নিয়ে যেকোনও আলোচনায় ভেটো দিতে পারে ইউরোপীয় পার্লামেন্ট। ফলে এই আলোচনায় করবিনের অবস্থান খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যদিও ব্রিটেনের সঙ্গে তিনি সরাসরি আলোচনায় অংশ নিচ্ছেন না। কোন অবস্থায় ব্রেঙ্েিটর বিপক্ষে ইউরোপীয় পার্লামেন্ট ভোট দিতে পারে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ইতোমধ্যে পার্লামেন্ট 'রেড লাইন' প্রকাশ করেছে। তিনি বলেন, আমরা বিস্তারিতভাবেই জানিয়েছি যে ইউরোপীয় নাগরিকদের বিষয়গুলো দেখতে হবে। নিরাপত্তা ও অর্থনৈতিক সম্পর্ক যেন ব্যহত না হয় সেটা দেখতে হবে। আয়ারল্যান্ডের সঙ্গে বিরুপ কোনও আচরণ করা হবে না। নিজেদের সকল প্রতিশ্রুতি রাখতে হবে যুক্তরাজ্যকে।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীনভেম্বর - ২৫
ফজর৫:০১
যোহর১১:৪৬
আসর৩:৩৫
মাগরিব৫:১৪
এশা৬:৩০
সূর্যোদয় - ৬:২০সূর্যাস্ত - ০৫:০৯
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৩০৭৭.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.