নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, মঙ্গলবার ১৮ জুলাই ২০১৭, ৩ শ্রাবণ ১৪২৪, ২৩ শাওয়াল ১৪৩৮
অপুষ্টিতে ভুগছে ৮০ হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গা শিশু
জনতা ডেস্ক
মায়ানমারের পশ্চিমাঞ্চলের রোহিঙ্গা মুসলমান অধ্যুষিত এলাকায় পাঁচ বছরের কম বয়সী ৮০ হাজারেরও বেশি শিশু অপুষ্টিতে ভুগছে। আগামী বছরের মধ্যে তীব্র অপুষ্টিতে ভুগতে থাকা ওই শিশুদের চিকিৎসার প্রয়োজন হবে বলে সতর্ক করে দিয়েছে জাতিসংঘের খাদ্য বিষয়ক সংস্থা ডবিস্নউএফপি। সংস্থাটির ওই প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে মায়ানমারের পশ্চিম রাখাইন রাজ্যের গ্রামগুলোতে জরিপের তথ্যের ওপর ভিত্তি করে। সেখানে প্রায় ৭৫ হাজার সংখ্যালঘু মুসলিম রোহিঙ্গা দেশটির রক্তাক্ত সেনা অভিযানে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। রাখাইনে ২ লাখ ২৫ হাজার মানুষের মানবিক সহায়তা প্রয়োজন। শিগগিরই যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া না হলে, রোহিঙ্গা মুসলমানরা মানবিক বিপর্যয়ের মুখোমুখি হবে নির্যাতিত রোহিঙ্গারা এখন চরম খাদ্য সংকটে পড়েছেন। বিশ্ব খাদ্য সংস্থা জরিপে উঠে এসেছে, মংডু এলাকার এক-তৃতীয়াংশ মানুষ চরম খাদ্য সংকটের মধ্যে রয়েছেন। সেখানকার একটি জেলা ভয়ঙ্করভাবে সহিংসতার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। কোনো কোনো বাড়িতে ২৪ ঘণ্টায় একবার খাবারেরও ব্যবস্থা নেই।

সামরিক বাহিনীর অভিযানে মংডুর প্রাপ্ত বয়স্ক অধিকাংশ পুরুষ সদস্যরা পালিয়ে গেছেন। এক চতুর্থাংশ নারী সদস্য তাদের পরিবার চালাতে হিমশিম খাচ্ছেন। পুরুষ সদস্যদের হারিয়ে ওই পরিবারগুলো চরম খাদ্য সংকটের মধ্য দিয়ে দিনাতিপাত করছে। দুই বছরের কম বয়সী শিশুদের নূ্যনতম খাবারের চাহিদাও পূরণ হচ্ছে না রোহিঙ্গা অধ্যুষিত এলাকায়। বিশ্ব খাদ্য সংস্থা বলছে, রাখাইনে ২ লাখ ২৫ হাজার মানুষের মানবিক সহায়তা প্রয়োজন।

বিশ্ব খাদ্য সংস্থার ওই প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, আগামী ১২ মাসের মধ্যে সেখানকার ৮০ হাজার ৫০০ শিশুকে অপুষ্টিজনিত চিকিৎসা সেবা দেয়ার প্রয়োজন হবে। সংস্থাটির মুখপাত্র মিয়ানমারে যাওয়ার পর বলেছেন, তাদের স্বাস্থ্য একেবারে নষ্ট হয়ে গেছে, এই পরিস্থিতির পরিণতি প্রাণঘাতী হতে পারে। এমনকি প্রতিষেধক দিয়েও তা সারানো কঠিন হয়ে পড়বে। জরিপে দেখা গেছে, ২০১৬ সালের শেষের দিকের সহিংসতার কারণে নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে রাখাইনের বিভিন্ন এলাকায় খাদ্য নিরাপত্তা পরিস্থিতি একেবারে ভেঙে পড়েছে। গত বছরের অক্টোবরে রাখাইনের সীমান্ত এলাকায় অস্ত্রধারী দুর্বৃত্তরা দেশটির সীমান্তরক্ষী বাহিনীর ওপর হামলা চালায়। এরপর মায়ানমার সেনাবাহিনী রোহিঙ্গা অধ্যুষিত এলাকায় ব্যাপক অভিযান শুরু করে।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীজুন - ২৪
ফজর৩:৪৪
যোহর১২:০১
আসর৪:৪১
মাগরিব৬:৫২
এশা৮:১৭
সূর্যোদয় - ৫:১২সূর্যাস্ত - ০৬:৪৭
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৪৩৯৪.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.