নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, শনিবার ১৬ জুন ২০১৭, ২ আষাঢ় ১৪২৪, ২০ রমজান ১৪৩৮
তাহিরপুরে বিলুপ্তির পথে লাউড় রাজ্যের প্রাচীন নিদর্শন
সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি
সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে লাউড় রাজ্যের প্রাচীন নিদর্শন হাওলি জমিদার বাড়ি বিলুপ্ত প্রায় । সংরক্ষণের উদ্যোগ না থাকায় শেষ নিদর্শনটুকুও হারিয়ে যাচ্ছে লাউড় রাজধানীর। রাজা বিজয় সিংহের স্থাপত্য হাওলি জমিদার বাড়িটি দিন দিন দখলে নিয়েছে স্থানীয় জনসাধারণ ও প্রভাবশালী মহল । দখলের এ মহোৎসব অব্যাহত থাকালে বছর' দুএক পরে কোন স্মৃতি চিহ্নই থাকবেনা এ জমিদার বাড়ির। বিভিন্ন তথ্য সূত্রে জানা যায়, উপজেলার উত্তর বড়দল ও দক্ষিণ বড়দল ইউনিয়নের মধ্যবর্তী স্থান হলহলিয়া গ্রামে এক কালের প্রাচীন লাউড় রাজ্যের রাজধানী ছিল । লাউড় রাজ্যের চতুসীমা ছিল পশ্চিমে ব্রহ্মপুত্র নদী, পূর্বে জৈন্তায়া, উত্তরে কামরুপ সীমান্ত ও দক্ষিণে বর্তমানে ব্রাহ্মনবাড়িয়া পর্যন্ত । এ রাজ্যের প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন কেশব মিত্র নামে এক ব্রাহ্মণ। সম্রাট আকবরের শাসনামলে লাউড় রাজ্য খাসিয়াদের আক্রমনের শিকার হলে কিছু দিনের জন্য এর রাজধানী বর্তমান হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচংয়ে স্থানান্তারিত হয়েছিল। পরে লাউড় রাজ্যের গোবিন্দ সিংহ তা পুনুরুদ্বার করে আবার রাজধানী স্ব-স্থানে পুনঃস্থাপন করেন।

সে সময় (আজ থেকে প্রায় ১২শ বছর পূর্বে) রাজা বিজয় সিংহ রাজ বাড়িটি তৈরি করেন। যা আজও হাওলি জমিদার বাড়ি নামে এলাকায় পরিচিত। ৩০ একর জমির ওপর প্রতিষ্ঠিত রাজ বাড়িটিতে ছিল বন্দীশালা, সিংহদ্ধার, নাচঘর, দরবার হল, পুকুর ও সীমানা প্রাচীর। ১২শ বছর পরেও এর কিছু স্থাপনা এখনও দৃশ্যমান রয়েছে। কিন্তু রক্ষণাবেক্ষণের উদ্যোগ না থাকায় শেষ নির্দশন টুকুর বিভিন্ন অংশ ভেঙে নিচ্ছে স্থানীয় লোকজন। পিএসসির চেয়ারম্যান ড. সাদিক রাজবাড়িটি রক্ষণাবেক্ষণের উদ্যোগের লক্ষ্যে একাধিকবার হাওলি রাজবাড়ি সরেজমিন পরিদর্শন করেন। বর্তমানে অযত্ন, অবহেলা, রক্ষণাবেক্ষণ ও সংস্কার না করার ফলে ঐতিহাসিক লাউড় রাজ্যের শেষ নির্দশনটুকু বিলুপ্তির পথে। প্রাচীন নিদর্শনটুকু রক্ষণাবেক্ষণের উদ্যোগ নিলে লাউড় রাজ্যের রাজধানী হলহলিয়া একটি আকষর্ণীয় পযটন কেন্দ্র হিসাবে গড়ে উঠতে পারে। স্থানীয়দের দাবি এখনই প্রত্নতত্ত্ব বিভাগ এই প্রাচীন নিদর্শনটি রক্ষার উদ্যোগ নিলে লাউড় রাজ্যের ইতিহাস প্রাচীন নিদর্শন কিছুটা হলেও রক্ষা করা যাবে।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীনভেম্বর - ১৬
ফজর৫:১২
যোহর১১:৫৪
আসর৩:৩৯
মাগরিব৫:১৭
এশা৬:৩৫
সূর্যোদয় - ৬:৩৩সূর্যাস্ত - ০৫:১২
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৫৭৭২.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.