নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০১৯, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ৯ শাওয়াল ১৪৪০
সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে মামলা করায় পুত্রবধূ গৃহহারা
সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি
সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে প্রবাসীর স্ত্রী কর্তৃক আপন শ্বশুরের বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল সুনামগঞ্জে মামলা দায়ের করায় দুই সন্তানের জননী গৃহবধূকে স্বামীর বসত বাড়ি থেকে জোরপূর্বক তাড়িয়ে দিয়েছেন পাষ- শ্বশুর মো. গোলাম মোস্তফা ওরফে গোলাপ মিয়া। সে দোয়ারাবাজার উপজেলার মান্নারগাও ইউনিয়নের হাজারীগাওঁয়ের বাসিন্দা। গত ২১ মে পুত্রবধূ বাদী হয়ে বিজ্ঞ আদালতে মো. গোলাম মোস্তফা ওরফে গোলাপ মিয়াকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়। যার শ্লিলতাহানি মোকদ্দমা নং-২০৮/ ২০১৯ইং। গৃহবধূ ও মামলা সূত্রে জানা যায়, হাজারীগাঁও নিবাসী আদম বেপারি মো গোলাম মোস্তফার ছেলে মনির আহমদের সাথে একই গ্রামের হাছন আলীর মেয়েকে বিবাহ দেয়া হয়। বিয়ের পর তিনি দুই সন্তানের জন্ম দেন। বিয়ের পর স্বামী সংসার নিয়ে গৃহবধু সুখেই ছিলেন। আড়াই বছর যাবৎ তার স্বামী প্রবাসে থাকেন। সন্তান নিয়ে শ্বশুরের কাছেই থাকতেন। শ্বশুর গোলাপ মিয়ার পাঁচ ছেলে ও দুই মেয়ের মধ্যে চার ছেলে বিদেশ থাকেন। অন্য ছেলে সিলেটে চাকরি করেন। দুই মেয়ের বিয়ে হয়ে শ্বশুর বাড়িতে থাকেন। ঘরে শুধু অসুস্থ্য বৃদ্ধ শ্বাশুরি ও পাষন্ড শ্বশুর। এই সুযোগে তার শ্বশুর শারীরিক মেলামেশার জন্য পুত্রবধূকে কুপ্রস্তাব দেয়। ঘটনাটি পুত্রবধু তার স্বামীকে মোবাইল ফোনে জানান। এই ঘঁটনা নিয়ে ছেলে তার বাবার সাথে পিতা-পুত্রের সম্পর্ক ছিন্ন করে ফেলেন। শ্বশুর গৃহবধূর উপর বিষণ রাগ্বানিত্ব হয়ে উঠেন। ১৬ মে রাতে পুত্রবধূ তার শয়ন কক্ষে ঘুমিয়ে পড়লে গভীর রাতে শ্বশুর গৃহবধুর কক্ষে প্রবেশ করে তাকে জোরপূর্বক শ্লীলতাহানি করেন। পুত্রবধূ আর্তচিৎকার করলে তার অসুস্থ্য শ্বাশুরি এগিয়ে গেলে শ্বশুর ঘটনাস্থল থেকে দ্রুত পালিয়ে যান। পরবতী ঘটনা তার প্রবাসী স্বামীকে অবগত করতে চাইলে শ্বাশুরি বাধা দেন। তারপরও গৃহবধূ ঘটনাটি স্বামীকে জানান। ঐ কারণে শ্বশুর-শ্বাশুড়ি গৃহবধূকে ঝড় বৃষ্টির রাতে দুটি সন্তানসহ ঘর থেকে বের করে দেন। পরে স্বামীর অনুরোধদে গৃহবধূ আদালতে মামলা দায়ের করেন।

উল্লেখ্য, গোলাম মিয়ার বড় ছেলে ফারুক মিয়ার স্ত্রীও শ্বশুরের অত্যাচারে স্বামীর বাড়ি ছেড়ে বাবার বাড়ি সদর উপজেলার মঙ্গলকাটা গ্রামে বসবাস করছেন।

এ ব্যাপারে আসামি গোলাম মিয়া বলেন, একটি কুচক্রী মহলের পরামর্শে পুত্রবধূ আমার বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেছে। আমিও দেখব মামলা করে সে কি করতে পারে।

এ ব্যাপারে মহিলা ইউপি সদস্য সুলতানা দীপু বলেন, আমাদের গ্রামে এই সমস্ত নোংরা ঘটনা পূর্বেও কোনো দিন ঘটেনি। কিন্তু শ্বশুর-গৃহবধূর ঘটনা শুনে আমি খুবই লজ্জিত। আপোষ মীমাংসা করার জন্য চেষ্টা করছি।

এ ব্যাপারে দোয়ারাবাজার থানার সেকেন্ড অফিসার সজিব জানান, আদালতের নির্দেশ মোতাবেক তদন্ত কাজ চলছে।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীসেপ্টেম্বর - ১৬
ফজর৪:২৯
যোহর১১:৫৪
আসর৪:১৯
মাগরিব৬:০৫
এশা৭:১৮
সূর্যোদয় - ৫:৪৫সূর্যাস্ত - ০৬:০০
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৪৭২৯.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.