নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, শুক্রবার ১৯ মে ২০১৭, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪, ২২ শাবান ১৪৩৮
জনতার মত
মাধ্যমিক শিক্ষা জাতীয়করণ প্রসঙ্গে
মো. মোশতাক মেহেদী
শিক্ষাই জাতির মেরুদন্ড। বর্তমানে বাংলাদেশের শিক্ষাব্যবস্থায় দুটি ধারা প্রচলিত। যার একটি সরকারি অপরটি বেসরকারি। বাংলাদেশের ৯৫ শতাংশ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বেসরকারি তথা এমপিওভুক্ত। একই যোগ্যতা ও অভিন্ন সিলেবাস হওয়া সত্ত্বেও এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কর্মরত শিক্ষক-কর্মচারীরা আজ বিরাট বৈষম্যের শিকার। যার বাস্তব উদাহরণ হল বৈশাখী ভাতা ও ৫ শতাংশ হারে বার্ষিক প্রবৃদ্ধি না পাওয়া। এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের বাড়িভাড়া একহাজার টাকা ও চিকিৎসাভাতা মাত্র পাঁচশত টাকা, যা বর্তমান যুগ অনুযায়ী একেবারেই বেমানান। যদিও এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারী সরকারি স্কেলে বেতন পান। আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের সমস্ত শিক্ষাব্যবস্থা সরকারি। দেশ স্বাধীনের পর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রাথমিক শিক্ষা জাতীয়করণ করেন। কয়েক দশক পর তাঁরই সুযোগ্য কণ্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের সমস্ত বেসরকারি রেজিষ্ট্রার্ড প্রাথমিক বিদ্যালয় কয়েকটি ধাপে জাতীয়করণ করেন। যার ফলে প্রাথমিক শিক্ষায় আমূল পরিবর্তন এসেছে। এখন সময় হয়েছে মাধ্যমিক শিক্ষা জাতীয়করণ করার। কিছু শিক্ষাবিশেষজ্ঞের মতে, মাধ্যমিক শিক্ষা জাতীয়করণ করলে শিক্ষার মান কমে যাবে। এ ধারনাটি ঠিক নয়। কারণ প্রাথমিক শিক্ষা ঢালাওভাবে জাতীয়করণ করার ফলে প্রাথমিক শিক্ষার মান কমেনি বরং বেড়েছে। সাবেক শিক্ষাসচিব মহোদয় জনাব নজরুল ইসলাম খাঁন তাঁর বিদায়ের কিছু আগে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাত করে মাধ্যমিক শিক্ষা জাতীয়করণ করার পক্ষে মত প্রকাশ করেন। তিনি বলেছিলেন, মাধ্যমিক শিক্ষা জাতীয়করণ করার জন্য একহাজার কোটি টাকা প্রয়োজন। প্রথম বছরে একটু সমস্যা হলেও পরবর্তীতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের যাবতীয় আয় রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা পড়লে আর কোনো সমস্যা হবে না। মাধ্যমিক স্তর জাতীয়করণ হলে শিক্ষাব্যবস্থায় আর কোনো বৈষম্য থাকবে না।

অতএব, বর্তমান শিক্ষাবান্ধব সরকারের কাছে আমাদের প্রত্যাশা আগামী ২০১৭-২০১৮ অর্থবছরে মাধ্যমিক শিক্ষা জাতীয়করণের জন্য পর্যাপ্ত টাকা বরাদ্দ করার বিষয়টি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে সদয় বিবেচনার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ জানাচ্ছি।

সর্বস্তরের এমপিওভুক্ত মাধ্যমিক শিক্ষক-কর্মচারীদের পক্ষে-

মোঃ মোশতাক মেহেদী : লেখক

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীসেপ্টেম্বর - ২৪
ফজর৪:৩২
যোহর১১:৫১
আসর৪:১২
মাগরিব৫:৫৬
এশা৭:০৯
সূর্যোদয় - ৫:৪৭সূর্যাস্ত - ০৫:৫১
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
২৬১৫.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.