নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বৃহস্পতিবার ১৭ মে ২০১৮, ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ৩০ শাবান ১৪৩৯
কুমিল্লায় বিএ প্রথম বর্ষে ৮৪ জন শিক্ষার্থীর নাম অন্তর্ভুক্ত হয়নি
শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের ক্ষোভ
চান্দিনা (কুমিল্লা) প্রতিনিধি
চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলার সাচার ডিগ্রি কলেজে শিক্ষকদের দায়িত্ব অবহেলায় ৮৪ জন শিক্ষার্থী বিএ/বিএসএস শাখায় ভর্তি হতে পারেনি। ফলে শিক্ষার্থী ও তাদের পরিবারের সদস্যদের মাঝে চরম ক্ষোভ ও অসন্তোষ দেখা দিয়েছে।

জানা গেছে, গত ১৭ জানুয়ারি থেকে ০৩ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ২০১৭-২০১৮ শিক্ষাবর্ষে কচুয়া উপজেলার সাচার ডিগ্রি কলেজে বিএ/বিএসএস এর প্রথম বর্ষে ভর্তির জন্য ১শ ৩৪ জন শিক্ষার্থী অনলাইনে আবেদন করে। এতে ৬০ জন শিক্ষার্থীর নামের অনুমোদন আসে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। বাকি ৮৪ জন শিক্ষার্থীদের নাম না আসায় শিক্ষার্থীরা ভেঙে পড়ে। ফলে তাদের শিক্ষা জীবন থেকে একটি বছর হারিয়ে যায় এবং এর মাশুল গুনতে হয় সাধারণ শিক্ষার্থীদের।

ভুক্তভোগী একাধিক শিক্ষার্থী জানান, বিএ/বিএসএস ভর্তির সময় কলেজ কর্তৃপক্ষ ১৫শ থেকে ২ হাজার টাকা নিয়ে অনলাইনের মাধ্যমে নাম ঠিকানা পূরণ করে। কিন্তু কেন, কি কারণে তাদের নাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনুমোদন হয়নি এ নিয়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে নানান প্রশ্ন ও ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। ভর্তিকালীন সময় ঐ কলেজের ৫ জন শিক্ষক এ ভর্তি কাজে দায়িত্বে ছিলেন বলে জানা গেছে। এরা হচ্ছেন সমাজকর্ম বিভাগের প্রভাষক চন্দনা সাহা, আহ্বায়ক ও সদস্য হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক সমিরন চন্দ্র ঘোষ, বাংলা প্রভাষক জহিরুল আলম, অর্থনীতি বিভাগের প্রভাষক জেসমিন সুলতানা, আইসিটি শিক্ষক বিপুল কান্তি মালা। তবে এদের মধ্যে আইসিটি বিভাগের শিক্ষক বিপুল কান্তি মালা শিক্ষার্থীদের ফরম পূরণ করে বলে, ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা জানান। এ ব্যাপারে কলেজের অধ্যক্ষ মো. নুরুল আমিন তালুকদার ৮৪ জন শিক্ষার্থীদের নাম অন্তর্ভুক্ত না হওয়ায় (ত্রুটি) বিষয়ে সত্যতা স্বীকার করে বলেন, বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক। এ বিষয়ে আমরা কলেজ গভর্নিং বডির সভাপতি, স্থানীয় এমপি মহোদয়কে অবগত করেছি এবং তার মাধ্যমে সহসাই জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগাযোগ করে নাম বাদ পড়া শিক্ষার্থীদের অন্তর্ভুক্ত করার চেষ্টা করছি। তবে দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষকদের অবহেলা রয়েছে কিনা এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ভর্তির সময়সীমা খুবই কম ছিল। বিশেষ করে শেষ দিন শিক্ষার্থীরা অনেকেই অনলাইনে আবেদন করায় সার্ভার ও বিদ্যুৎজনিত ত্রুটির কারণে অনেক শিক্ষার্থীর নাম অন্তর্ভুক্ত হয়নি এমনটাই মনে করেন তিনি। অন্যদিকে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী ও অভিভাবকগণ দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষকদেরই এ ভুলের জন্য দায়ী করেন।

এছাড়া সাচার ঐ কলেজের জমিজামা নিয়ে কলেজ কর্তৃপক্ষ স্থানীয় লোকজনের সাথে বিরোধ রয়েছে বলে এলাকাবাসী আমাদের প্রতিনিধিকে জানান। এব্যাপারে কলেজের গভর্নর সভাপতি, কচুয়ার সংসদ সদস্য, সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মহীউদ্দীন খান আলমগীর এমপি সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য এলাকাবাসী জোর দাবি জানাচ্ছেন।

বি. দ্র. সংবাদের সাথে ছবি আছে।

ক্যাপশন: চাঁদপুরের কচুয়ার সাচার ডিগ্রি কলেজে বিএ প্রথম বর্ষে ৮৪ জন শিক্ষার্থীর নাম না আসার বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছেন, অধ্যক্ষ নুরুল আমিন, পাশে কলেজ ভবনের একাংশ।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীজুলাই - ৯
ফজর৩:৫১
যোহর১২:০৪
আসর৪:৪৩
মাগরিব৬:৫২
এশা৮:১৬
সূর্যোদয় - ৫:১৭সূর্যাস্ত - ০৬:৪৭
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
১০৩৮৮.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.