নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২০ মার্চ ২০১৪, ৬ চৈত্র ১৪২০, ১৮ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৫
হিন্দু-বৌদ্ধ-খৃস্টান আদিবাসী পার্টির আত্মপ্রকাশ
স্টাফ রিপোর্টার
'বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খৃস্টান আদিবাসী পার্টি' নামের নতুন একটি রাজনৈতিক দল আত্মপ্রকাশ করেছে। গতকাল বুধবার দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্সর্ ইউনিটিতে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে দলের ৫১ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়। অবিলম্বে পূর্ণাঙ্গ কমিটি প্রকাশ করা হবে বলেও এ সময় জানানো হয়।

কমিটির আহ্বায়ক ও মুখপাত্র করা হয়েছে মিঠুন চৌধুরীকে। এছাড়া সদস্য সচিব হিসেবে এডভোকেট সুরঞ্জিত বর্মন এবং যুগ্ম-আহ্বায়ক হলেন জন বিশ্বাস, করুণা সিন্ধু বড়ুয়া, ডা. তরণী দেবনাথ, সুরঞ্জন বর্মণ, রঞ্জন রায় চৌধুরী ও দেবাশীষ চাকমা। এছাড়া আছেন নির্বাহী সদস্যরা।

সংবাদ সম্মেলনে আহ্বায়ক মিঠুন চৌধুরী বলেন, স্বাধীনতার ৪৩ বছর পরও হিন্দু, বৌদ্ধ ও খৃস্টান সমপ্রদায় তাদের জানমালের নিরাপত্তা ও ধর্মীয় উপাসনালয়- মঠ, মন্দির নিয়ে খুবই উদ্বিগ্ন। দেয়ালে আমাদের পিঠ ঠেকে গেছে। আমাদের অধিকার ও বেঁচে থাকার অঙ্গীকার নিয়েই এই পাটির্র জন্ম হয়েছে।

আমাদের দেশে গণতন্ত্র ও অসামপ্রদায়িক সরকারের অস্তিত্ব শুধুই মৌখিক হলেও, কার্যত এর কোনো অস্তিত্ব নেই মন্তব্য করে তিনি বলেন, দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে হিন্দু, বৌদ্ধ ও খৃস্টান আদিবাসী সম্বলিত গোষ্ঠীর ১৪ জন সংসদ সদস্য আছেন। কিন্তু তাদের একজনও কি পূর্ণ মন্ত্রী হওয়ার যোগ্যতা রাখেন না? আসলে রাষ্ট্রীয়ভাবে এই গোষ্ঠীকে অবমূল্যায়ন করার হীন প্রচেষ্টা চলছে।

সংবাদ সম্মেলনে আলোচকরা নয় দফা দাবি তুলে ধরেন। এর মধ্যে রয়েছে বিশেষ ট্রাইব্যুনাল গঠনের মাধ্যমে আদিবাসীদের নির্যাতনকারীদের খুঁজে বের করে শাস্তি নিশ্চিত করা; শত্রু সম্পত্তি, দেবোত্তর সম্পত্তিসহ আদিবাসীদের স্বার্থবিরোধী সব কালো আইন বাতিল; দেশের সব জেলায় সংরক্ষিত আসনে একজন করে আদিবাসী সাংসদ নির্বাচন করা ইত্যাদি।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত