নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বুধবার ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ২ ফাল্গুন ১৪২৪, ২৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৯
লাইটারেজ জাহাজ সঙ্কট
খালাসের অপেক্ষায় লাখ লাখ টন পণ্য
জনতা ডেস্ক
চট্টগ্রাম বন্দরের বহির্নোঙরে অর্ধশতাধিক মাদার ভেসেলের লাখ লাখ টন পণ্য লাইটারেজ জাহাজ সঙ্কটে খালাস করা যাচ্ছে না। বর্তমানে প্রায় সহস্রাধিক লাইটারেজ জাহাজ পণ্য নিয়ে দেশের বিভিন্ন ঘাটে খালাসের অপেক্ষায় রয়েছে। মূলত লাইটারেজ জাহাজ সংকটে নৌপথে পণ্য পরিবহনে অচলাবস্থা দেখা দিয়েছে। অথচ নৌপথে আমদানি করা পণ্যের পরিবহন আগের চেয়ে বেড়েছে। কিন্তু সে তুলনায় লাইটারেজ জাহাজ তেমন বাড়েনি। পাশাপাশি বর্তমানে মহাসড়কে ওজন পরিমাপের স্কেলের কারণে ট্রাক বা কাভার্ডভ্যানে করে নির্দিষ্ট পরিমাণের বেশি পণ্য পরিবহন করা যাচ্ছে না। তাছাড়া সড়ক পথে পরিবহনে নানা সমস্যার কারণে ব্যবসায়ীরা নৌপথে পণ্য পরিবহনেই বেশি আগ্রহী। কিন্তু সঙ্কট লাইটারেজ জাহাজ। ওয়াটার ট্রান্সপোর্ট সেল সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়। সূত্র এফএনএস

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, ব্যবসায়ীরা পণ্য আমদানি বাড়ালেও পণ্য রাখার জন্য গুদাম নির্মাণ করেননি। ফলে গুদাম সংকটে জাহাজে দীর্ঘদিন পণ্য রাখতে হচ্ছে। ব্যবসায়ীরা লাইটারেজ জাহাজগুলোকে মূলত গুদামে পরিণত করে রেখেছেন। প্রতিদিন ৩০/৩৫টি লাইটারেজ জাহাজ পণ্য নিয়ে নির্দিষ্ট স্থানে যাচ্ছে। কিন্তু পণ্য খালাসে বিলম্বের কারণে জাহাজ ফিরে আসতে সময় লাগছে। অথচ অর্ধশতাধিক মাদার ভেসেল পণ্য নিয়ে খালাসের অপেক্ষায় রয়েছে।

সূত্র জানায়, জাহাজ মালিকদের সংগঠন ওয়াটার ট্রান্সপোর্ট সেলের অধীনে প্রায় ১৪শ' জাহাজ রয়েছে। তারমধ্যে এক হাজার ৫০টি জাহাজই বিভিন্ন ঘাটে অবস্থান করছে। বহির্নোঙ্গও থেকে পণ্য নিয়ে নির্দিষ্ট স্থানে খালাস

করে ফিরে আসতে ২/৩ দিনের বেশি সময় লাগার কথা নয়। কিন্তু লাইটারেজ জাহাজ থেকে পণ্য খালাস করতে ব্যবসায়ীরা ২৫/৩০ দিন সময় নিচ্ছেন। তাতে শত শত লাইটারেজ জাহাজ আটকা পড়ছে। তাছাড়া পণ্য খালাসের ঘাটগুলো পলি জমে ভরাট হয়ে গেছে। ফলে পণ্য খালাসে সময় বেশি লাগছে। তবে আগামী কয়েক মাসের মধ্যে দুইশ' থেকে আড়াইশ'টি নতুন লাইটারেজ জাহাজ যুক্ত হবে। ইতিমধ্যে ৫০/৬০টি যুক্ত হয়েছে। বাকিগুলোর নির্মাণ কাজ ৫০ শতাংশ শেষ হয়েছে। সবগুলো জাহাজ নামলে সংকট কিছুটা কমে আসবে।

এ প্রসঙ্গে চট্টগ্রাম চেম্বারের সভাপতি মাহাবুবুল আলম জানান, আমদানি আগের চেয়ে বেড়েছে। কিন্তু পণ্য পরিবহনে জাহাজ বাড়েনি। নতুন লাইটারেজ জাহাজের লাইসেন্স দেয়া হচ্ছে না। তাতে জাহাজ সংকট দেখা দিয়েছে।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীফেব্রুয়ারী - ২৩
ফজর৫:১০
যোহর১২:১৩
আসর৪:২১
মাগরিব৬:০১
এশা৭:১৪
সূর্যোদয় - ৬:২৬সূর্যাস্ত - ০৫:৫৬
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
২৮৯০.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.