নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, মঙ্গলবার ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ৩০ মাঘ ১৪২৫, ৬ জমাদিউস সানি ১৪৪০
হাসপাতালে পর্যবেক্ষণে কবি আল মাহমুদ
স্টাফ রিপোর্টার
সমকালীন বাংলা সাহিত্যের অন্যতম প্রধান কবি আল মাহমুদকে ৪৮ ঘণ্টার পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হলে গত ৮ ফেব্রুয়ারি তাকে ধানমন্ডি শঙ্করের ইবনে সিনা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে তাকে পরের দিন আইসিইউতে নেয়া হয়।

ইবনে সিনার আইসিইউ'র ইনচার্জ জানান, কবি আল মাহমুদের বয়স বিবেচনায় নিতে হবে। তার নিউমোনিয়ার উন্নতি হতে সময় লাগবে। তিনি বলেন, নিউমোনিয়া ছাড়াও কবির হার্টে সমস্যা, বার্ধক্যজনিত রোগ ছাড়াও একাধিক প্রত্যক্ষ কাজ করছে না। এজন্য তাকে ৪৮ ঘণ্টা পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। এখনই নির্দিষ্ট কিছু বলা সম্ভব হচ্ছে না।

আইসিইউ'র ইনচার্জ আরও বলেন, কবির অবস্থা স্থিতিশীল। এজন্য আমরাও বেশ আশাবাদী। সব চেষ্টা করা হচ্ছে, বাদবাকি আল্লাহর ইচ্ছা। শারীরিক অবস্থার কিছুটা উন্নতি হলেই তাকে এইচডিইউতে নেয়া হবে। কবি আল মাহমুদ হাসপাতালে নিউরো স্পেশালিস্ট অধ্যাপক ডা. আব্দুল হাইয়ের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন।

কবি আল মাহমুদ ১৯৩৬ সালের ১১ জুলাই ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার মৌড়াইল গ্রামের মোল্লাবাড়িতে জন্মগ্রহণ করেন। তিতাস নদীর পাড়েই বেড়ে ওঠা। লেখালেখি শুরু সপ্তম শ্রেণি থেকে। এরপর ১৯৭১ সালে স্বাধীনতাযুদ্ধে অংশ নেন। ১৯৭৪ সালে গণকণ্ঠের সম্পাদক থাকাকালে কারাবরণ করেন। ১৯৯৩ সালে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির পরিচালক পদ থেকে অবসর নেন তিনি।

নগরজীবনে কিংবদন্তি এই কবি রাজধানীর মগবাজারে বসবাস করছেন। বার্ধক্যে এসে বছরেরও বেশি হলো বাকশক্তি হারিয়েছেন। অবশ্য তারও বেশ আগে থেকেই কবি নিজ হাতে লিখতে পারেন না। বলে বলে যান, অন্যরা তা শুনে লিখে দেন। এখন সেটিও বন্ধ। এরই মধ্যে তিনি গত শুক্রবার একেবারেই শয্যাশায়ী হয়ে পড়লেন।

কবি আল মাহমুদের রচনার মধ্যে রয়েছে, কাব্যগ্রন্থ লোক লোকান্তর, কালের কলস, সোনালী কাবিন, মায়াবী পর্দা দুলে ওঠো, অদৃষ্টবাদীদের রান্নাবান্না, বখতিয়ারের ঘোড়া, একচক্ষু হরিণ, দোয়েল ও দয়িতা, দ্বিতীয় ভাঙ্গন, নদীর ভিতরে নদী, না কোনো শূন্যতা মানি না, বিরামপুরের যাত্রী, বারুদগন্ধি মানুষের দেশ, সেলাই করা মুখ, তোমার রক্তে তোমার গন্ধ ইত্যাদি।

কবির সাড়া জাগানো উপন্যাস কাবিলের বোন, পানকৌড়ির রক্ত, উপমহাদেশ, ডাহুকি, যেভাবে বেড়ে উঠি, আগুনের মেয়ে, যমুনাবতী, চেহারার চতুরঙ্গ, যে পারো ভুলিয়ে দাও, ধীরে খাও অজগরী ইত্যাদি। সাহিত্যকর্মের জন্য আল মাহমুদ একুশে পদক, বাংলা একাডেমিসহ অসংখ্য পুরস্কার পেয়েছেন।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীআগষ্ট - ২১
ফজর৪:১৭
যোহর১২:০২
আসর৪:৩৬
মাগরিব৬:৩০
এশা৭:৪৬
সূর্যোদয় - ৫:৩৬সূর্যাস্ত - ০৬:২৫
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৪৬৬৩.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata123@gmail.com, bishu.janata@gmail.com
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.