নিবন্ধিত হোন |
ইউজার সাইনইন
ই-মেইলঃ
পাসওয়ার্ডঃ
পাসওয়ার্ড ভুলে গেছেন?
ই-মেইলঃ 
বন্ধ করুন (X)
ঢাকা, বুধবার ১১ জানুয়ারি ২০১৭, ২৮ পৌষ ১৪২৩, ১২ রবিউস সানি ১৪৩৮
মোহাম্মদপুর জেনেভা ক্যাম্পে সন্ত্রাসের রাজত্ব
ক্যাম্পবাসীদের প্রশ্ন : সন্ত্রাসী জব্বার খানের খুঁটির জোর কোথায়?
স্টাফ রিপোর্টার
রাজধানীর মোহাম্মদপুর জেনেভা ক্যাম্পে সন্ত্রাস ও অপরাধের রাজত্ব সৃষ্টি হয়েছে। স্ট্রানডেড পাকিস্তানি জেনারেল রিপ্যাট্রিয়েশন কমিটি-এসপিজিআরসি এর সভাপতি আব্দুল জব্বার খান দীর্ঘদিন যাবৎ রাজধানীর মোহাম্মদপুর জেনেভা ক্যাম্পে সন্ত্রাস ও অপরাধমূলক কর্মকা- চালিয়ে আসছে বলে জানা গেছে। ইতোমধ্যে তার কর্মকা-ের বিরুদ্ধে বিভিন্ন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপিও পাঠানো হয়েছে। এছাড়া তার বিরোদ্ধে একাধিকবার মোহাম্মদপুর থানায় মামলাও দায়ের করা হয়েছে। তারপরও সন্ত্রাস ও অপরাধ সংক্রান্ত কর্মকা- বন্ধ হচ্ছে না। এখন জেনেভা ক্যাম্পবাসীদের প্রশ্ন দেখা দিয়েছে 'সন্ত্রাসী জব্বার খানের খুঁটির জোর কোথায়?'।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো এক চিঠিতে নিরীহ ক্যাম্পবাসীদের পক্ষে মো. জাফর আহমদ জানান, দীর্ঘদিনযাবৎ জব্বার খানের নেতৃত্বে ক্যাম্পের একটি বাহিনী নানা ধরনের অপরাধমূলক কাজ চালিয়ে আসছে। জব্বার খানের দুই ছেলে মো. শাহনেওয়াজ আহমদ খান ও মো. মুর্তুজা আহমদ খান এবং মো. আনোয়ার ওরফে মোল্লা আনোয়ারকে দিয়ে শান্তি বাহিনী গঠন করে। শান্তি বাহিনীর নামে এরা ইয়াবা ব্যবসাসহ বিভিন্ন ধরনের সন্ত্রাসী কর্মকা- চালিয়ে আসছে। চিঠিতে জাফর আরো জানান, বিগত ১০ বছর যাবৎ ক্যাম্পের বাসিন্দারা এই শান্তি বাহিনীর কাছে জিম্মি। এই বাহিনীর লোকজন ক্যাম্পে বোমা তৈরি করে। বোমা তৈরির সময় ক্যাম্পে কয়েকবার বিস্ফোরণ হয়েছে। তাতে অনেকে আহতও হয়েছে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো চিঠির উত্তরে সহকারী সচিব এফ এম তৌহিদুল আলম মোহাম্মদপুর জেনেভা কাম্পে অপরাধীদের নামের তালিকা ও তাদের কর্মকা- পর্যালোচনা করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বান জানান।

এদিকে, গত ২৯ ডিসেম্বর আব্দুল জব্বার খান ও তার বাহিনীর সন্ত্রাস ও অপরাধমূলক কর্মকা- নির্মূলে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দেন ক্যাম্পবাসী। ক্যাম্পবাসীদের পক্ষে স্মারকলিপিতে স্বাক্ষর করেন মো. সইদুল ইসলাম, মো. আফসার, মুন্নী ও মুরাদ। স্মারকলিপিতে বলা হয়, স্বাধীনতা বিরোধী একটি চক্র দীর্ঘদিন যাবৎ সন্ত্রাস ও অপরাধ সংক্রান্ত কার্যক্রম চালিয়ে আসছে। এসবের বিরুদ্ধে একাধিকবার মোহাম্মদপুর থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। তারপরও সন্ত্রাস ও অপরাধ সংক্রান্ত কর্মকা- বন্ধ হচ্ছে না। স্মারকলিপিতে আরো উল্লেখ করা হয়, আটকে পড়া পাকিস্তানি জেনারেল রিপ্যাট্রিয়েশন কমিটি-এসপিজিআরসি এর সভাপতি জব্বার খানকে ২০১৪ সালে বাংলাদেশে নিযুক্ত পাকিস্তান দূতাবাস ৫০টি ল্যাপটপ দিয়েছিল। আমাদের আশংকা ঐসব ল্যাপটপ জেএমবি কিংবা সরকার নিষিদ্ধ সংগঠনগুলো ব্যবহার করছে। এছাড়া জব্বার খানের ছেলেরা বিভিন্ন অপরাধের সাথে জড়িত। স্মারকলিপিতে নিরীহ ক্যাম্পবাসীদের বাঁচাতে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানানো হয়। নাম জানাতে অনিচ্ছুক কয়েকজন ক্যাম্পবাসী অভিযোগ করে বলেন, জব্বার খান বাহিনীর সন্ত্রাসী কর্মকা-ে আমরা অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছি। এদের বিরুদ্ধে কোনো কথা বললেই তারা আমাদের নানা ধরনের হুমকি দেয়। এজন্য আমরা প্রকাশ্যে কোনো প্রতিবাদও করতে পারি না। এদের জন্য ক্যাম্পের অনেক ছেলেমেয়ে খারাপ হয়ে যাচ্ছে। অবিলম্বে এসব সন্ত্রীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।

এই প্রতিবেদন সম্পর্কে আনার মতামত দিন।
মতামত দিতে চাইলে অনুগ্রহ করে করুন।
আপনার কোন একাউন্ট না থাকলে রেজিষ্ট্রেশন করুন।
এই পাতার আরো খবর -
সর্বাধিক পঠিত
ফটো গ্যালারি
আজকের পত্রিকা
আজকের নামাজের সময়সূচীজুন - ২৬
ফজর৩:৪৫
যোহর১২:০১
আসর৪:৪১
মাগরিব৬:৫২
এশা৮:১৭
সূর্যোদয় - ৫:১৩সূর্যাস্ত - ০৬:৪৭
পুরোন সংখ্যা
বছর : মাস :
আজকের পাঠকসংখ্যা
৩১৬০.০
সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতিঃ সৈয়দ এম. আলতাফ হোসাইন। সম্পাদক : আহ্সান উল্লাহ্। উপদেষ্টা সম্পাদক : মোঃ শাহাবুদ্দিন শিকদার। প্রকাশক ছৈয়দ আন্ওয়ার কর্তৃক রোমাক্স লিমিটেড, তেজগাঁও শিল্প এলাকা থেকে মুদ্রিত। সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : খলিল ম্যানশন (৩য়, ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), ১৪৯/এ, ডিআইটি এক্সটেনশন এভিনিউ, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত। ফোন : ৯৩৫৭৭৩০ (বার্তা), ৮৩১৫৬৪৯ (বাণিজ্যিক), ফ্যাক্স : ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪.
ই-মেইলঃ djanata@dhaka.net
ফোনঃ ০২৮৩১৫১১৫, ০২৮৩১৫৬৪৯ ফ্যাক্সঃ ৮৮-০২-৮৩১৪১৭৪
Copyright The Dainik Janata © 2010 Developed By : orangebd.com.